একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ব্লগে নিয়মিত মতামত প্রদান প্রসঙ্গে।

ব্লগ পেইজে ব্লগাররা প্রতিনিয়ত তাদের কনটেন্ট যুক্ত করেন আর ব্যবহারকারীরা সেখানে তাদের মন্তব্য প্রদান করেন। এছাড়াও সাম্প্রতিক কালে ব্লগ ফ্রিল্যান্স সাংবাদিকতার একটা মাধ্যম হয়ে উঠেছে। সাম্প্রতিক ঘটনাসমূহ নিয়ে ব্লগে হয়ে থাকে। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কার্যক্রম অনলাইনভিত্তিক। প্রকল্পের সকল চিঠিপত্র এবং দৈনন্দিন কার্যক্রম ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়। প্রকল্পের উপকারভোগীদের সঞ্চয় জমা, ঋণ প্রদান, ঋণের কিস্তি আদায়সহ সকল আর্থিক কার্যক্রম অনলাইন ব্যাংকিং-এর মাধ্যমে চলমান রয়েছে। তাই এই প্রকল্পের সম্পৃক্ত কোন অনলাইন ব্যবহারকারীর কোন ধরনের সমস্যার সম্মুখিন হলে ব্লগে লিখে তার মতামত প্রকাশ করতে পারেন। একই ধরণের সমস্যা অন্যত্র কি ভাবে সমাধান করা হচ্ছে তা লিখে জানানো যেতে পারে। এ ভাবে পরস্পর যোগাযোগের মাধ্যমে অনেক সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে। উক্ত ব্লগ ব্যবহারের দ্বারা একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ব্লগটিকে আরোও সমৃদ্ধ করার পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে।
একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা/ কর্মচারীদেরকে ব্লগে তাদের নিজস্ব মতামত এবং উদ্ভাবনী বিষয়ে মতামত/সুপারিশ প্রেরণের জন্য নির্দেশনা প্রদান করা হলো।

স্বাক্ষরিত
প্রকল্প পরিচালক

ব্লগে মতামত লিখতে কোন ধরনের সমস্যা হলে আইটি শাখায় যোগাযোগ করতে হবে।
এ.এম.ই.তানহার
প্রোগ্রামার
01938879010
01911985299

This entry was posted in EBEK Admin. Bookmark the permalink.

221 Responses to একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ব্লগে নিয়মিত মতামত প্রদান প্রসঙ্গে।

  1. Md Masud Rana says:

    শ্রদ্ধাভাজন পিডি স্যার,
    আমার প্রাণ প্রিয় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প আজ , আপনার দূরদৃস্টির জন্যই “পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক’’ প্রতিষ্ঠিত হতে চলছে। সেই সাথে স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে ভিক্ষুক,দরিদ্র,মেহনতি মানুষের আস্থার কান্ডারী জনোনেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা । সেই সাথে আমি ,আমরা সেবা করতে পারছি গরীব দু:খী মেহনতি মানুষের।
    স্যার প্রকল্পের সেবা কে বেগবান করতে এফ, এসদের কঠোর পরিশ্রম করাতে হব। আর এজন্য এফ ,এসদের ভ্রমনের ব্যবস্হা করার জন্য সবিনয় অনুরোধ জানা্ই। ভূলত্রুটি মার্জনী।
    ধন্যবাদ স্যার।

  2. Kalyan says:

    শুভ হোক আগামীর পথ চলা।
    ☆☆শুভ নববর্ষ -1422☆☆

  3. Mazidul Islam says:

    মাননীয় পিডি স্যার
    জনাব আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করাই আপনাকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা,জনাব আমরা যারা এইচ,এস,সি পাসের সারকুলারে চাকুরিতে যোগদান করেছি, এখনও অনেকের অর্নাস, ডিগ্রি কমপ্লিট হয়নি কেউ দ্বিতীয় সেমিষ্টার,কেউ তৃতীয় সেমিষ্টার আবার কেউ চতুর্থ সেমিষ্টারে পড়ছেন, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে তাদেরকে কি অবস্থানে রাখা হবে, তাদেরকে কি কাজের যোগ্যতা অনুযায়ী পদন্নোতি দেওয়া হবে, জানালে আমরা কৃত্বঙ্গ থাকিব?………

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      দক্ষতার কোন বিকল্প নেই। অবশ্যই মূল্যায়ন করা হবে।

  4. Iqbal hoq says:

    প্রিয় সহকর্মী
    কমল চন্দ্র দাস,আপনার বিদেহী আত্বার মাগফেরাত কামনা করি। কমল চন্দ্র দাস এর পরিবারের প্রতি রইল সমবেদনা। মহান আল্লাহতায়ালা যেন আপনাদের সন্তানের শোক কাটিয়ে উঠতে অসীম ধৈর্য ধারন করার ক্ষমতা দান করেন।
    ইকবাল হক
    কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী
    এবাএখা,তাড়াইল,কিশোরগঞ্জ।
    মোবাঃ 01736909821

  5. সুমন শিকারী says:

    আমাদের প্রিয় সহকর্মী কমল চন্দ্র দাস,কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী,ধামরাই,ঢাকা এর অকাল মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। আমরা তার শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা সববেদনা জানাই।

  6. CO- Bondu ra kemon aso? Wellcome to CO- New comer `87′ person.

  7. sarup says:

    মাননীয় পিডি স্যার, আমরা পার্বত্য ও দূর্গম এলাকায় কর্মরত একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কর্মকর্তা/কর্মচারি হই। পার্বত্য জেলাগুলো বাংলাদেশের সবচেয়ে দূর্গম ও পাহাড়ি এলাকা। এখানকার ইউনিয়নগুলো বিশাল এলাকা জুড়ে বিস্তৃত কিন্তু জনবসতি খুবই কম। এবাএখা প্রকল্পের আওতায় গঠিত সমিতিগুলো অনেক দুরত্বে ও দুর্গমে হওয়ায় সমিতি গুলো নিয়মিত ভ্রমন করা অনেক সময় স্বাপেক্ষ ও ব্যয় বহুল। প্রতি ইউনিয়নে দুর্গম পাহাড়ি এলাকায় এমনও কিছু সমিতি আছে যেখানে সদস্য/সদস্যাদের নিয়ে উঠান বৈঠক করতে দুই-তিন রাত রাত্রিযাপন করতে হয়। এখানে ছাদের গাড়ি ও ভাড়ায় মোটর সাইকেল এবং দীর্ঘ পথ পায়ে হেঁটে সমিিত ভ্রমন করা প্রত্যেকের নিত্য নৈমত্তিক ব্যাপার। বাংলাদেশের সমতল এলাকায় মাঠ সহকারীদের বাই সাইকেল দেওয়া হলেও পাহাড়ি ও দুর্গম এলাকায় তাও দেওয়া হয়নি।
    মহোদয়ের সমীপে বিনীত প্রার্থনা উপরোক্ত বিষয়াদি সুবিবেচনা পূর্বক পার্বত্য এলাকায় কর্মরত সকল কর্মকর্তা/কর্মচারির জন্য বর্ধিত হারে টিএ/ডিএ প্রদানসহ পাবর্ত্য জেলার প্রতিটি উপজেলায় দুইটি করে মোটর সাইকেল বরাদ্ধ দিলে প্রকল্পের সফলতা অনেকাংশে এগিয়ে যাবে এবং সকল কর্মকর্তা/কর্মচারির মধ্যে কর্ম চঞ্চলতা ও কর্মস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      তোমরা কি বািই সাইকেল পেয়েছ? দুর্গম ভাতা? জানাইও। পিডি

  8. Kalyan says:

    মতামত :
    পুরাতন সমিতির ম্যানেজারদের সম্মানী ভাতা বন্ধ হওয়ার পরথেকে বেশিরভাগ ম্যানেজার তাদের দায়িত্ব যথাযথ ভাবে পালন করছে না। ভাতা না পাওয়ার তারা এ দায়িত্ব অনিহা প্রকাশ করছে এবং নতুন কোন সদস্যও এ দায়িত্ব নিতে আগ্রহী নয় । তাদের দায়িত্ব কেবল প্রয়োজনীয় কিছু স্বাক্ষর প্রদান করা। ফলে মাঠ সহকারীদেরই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ম্যানেজারদের ভূমিকা নিতে হয়। যা মাঠ সহকারিদের কাজের সার্বিক অগ্রগতিকে বাধাগ্রস্থ করছে।

    • aftab says:

      Dear PD sir,
      Please send TA/DA all EBEK staff(uco,co,fs,fa),old manager onarioum &
      New Samitee Data Entry money Next(April-june/15) Budget.

      Regards,
      aftab_co_islampur, jamalpur.
      cell:01712-795256.

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      মাঠসহকারী নিয়োগ দেয়া হয়েছে কি কারনে? তুমি এটা লিখে জানাবে। আমার ধারনা মাঠ সহকারীরা সঠিকভাবে কাজ করে না। তোমার এ সত্য মতামতের জন্য ধন্যবাদ। আমি সকল সহকর্মীকে অনুরুপ সত্য বলতে ও লিখতে অনুরোধ করি। পিডি

  9. Kalyan says:

    মতামতঃ
    প্রতি উপজেলায় গঠিত গ্রাম উন্নয়ন সমিতির মধ্যে থেকে শ্রেষ্ঠ সভাপতি, শ্রেষ্ঠ ম্যানেজার, শ্রেষ্ঠ উপকারভোগী সদস্য নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু হয়ে থাকলে এটা খুবই ভাল উদ্যোগ। যা প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি বৃদ্ধি করবে।
    অনুরূপ ভাবে প্রতি উপজেলা থেকে শ্রেষ্ঠ মাঠ সহকারী এবং প্রতি জেলা থেকে শ্রেষ্ঠ ফিল্ড সুপারভাইজার/সমন্বয়কারী নির্বাচন করে পুরস্কারের ব্যবস্থা করা গেলে এবাএখার কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মদক্ষতা প্রদর্শনের স্পৃহা বৃদ্ধি পাবে যার ফলসরূপ প্রকল্পের সার্বিক অগ্রগতি আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আমি মনে করি।

    • সুমন শিকারী says:

      প্রতি উপজেলা থেকে শ্রেষ্ঠ মাঠ সহকারী,শ্রেষ্ঠ ফিল্ড সুপারভাইজার কিংবা প্রতি জেলা থেকে শ্রেষ্ঠ উপজেলা সমন্বয়কারী যেমন নির্বাচন করা প্রয়োজন তেমনি প্রতি জেলা থেকে শ্রেষ্ঠ কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী নির্বাচন করে জাতীয় পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী নির্বাচন করা প্রয়োজন যার ফলে তাদের কর্মদক্ষতা অধিকতর বৃদ্ধি পাবে বলে আমি মনে করি।

      • একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের উপজেলা কার্যালয় হতে উপজেলা সমন্বয়কারী, ফিল্ড সুপারভাইজার, মাঠ সহকারী দের শ্রেষ্ঠ পুরষ্কারে ভূষিত করা হচ্ছে। কিন্তু কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারীদের উক্ত পুরষ্কার এর আওতার বাইরে রাখা হয়েছে। কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারীদেরকেও জাতীয় পর্যায়ে পুরষ্কারে ভুষিত করার জন্য মাননীয় প্রকল্প পরিচালক মহোদয়ের নিকট প্রার্থনা করছি এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়টি বিবেচনার আকুল আবেদন করছি।

      • aftab says:

        100% Right.

        aftab, co-islampur, jamalpur.
        cell:01712-795256.

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      ধন্যবাদ তোমার ইতিবাচক মতামতের জন্য। পিডি

  10. Iqbal hoq says:

    ভালোবাসার পুস্প বৃষ্টিতে যদি ছিটানো যায় তাহলে আমাদের পিডি ও সম্মানীত ব্যাবস্থাপনা পরিচালক,পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, মহোদয়কে ছিটানো উচিত । কেননা তিনি এবাএখা পরিবারের সকলের জন্য অত্যন্ত নিরলসভাবে কাজ করে চলেছেন। তিনি নিজেকে উজাড় করে এবাএখা সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীদের জন্য পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। আসুন স্যালূট যদি করতেই হয় তাহলে আমাদের পিডি ও সম্মানীত ব্যাবস্থাপনা পরিচালক,পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক মহোদয়কে করি।

  11. Kalyan says:

    মতামতঃ
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অনলাইন ব্যাংকিং গতিশীলতা আরো বৃদ্ধি এবং খুব সহজে অনলাইনের সমস্যা গুলো সমাধান করে কর্মীদের আরো দক্ষ করার লক্ষ্যে বাংলায় সহজবোধ্য অনলাইন ব্যাংকিং পরিচালনা ম্যানুয়াল তৈরি করা প্রয়োজন।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      ধন্যবাদ সুন্দর সাজেশনের জন্য। প্রোগ্রামার বিষয়টি নিয়ে আমার সাথে কথা বলবে। পিডি

  12. Ranjit mondal says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যংক এর পরিচালনা পরিসদের নিকট মাঠ সহকারীগনদের আকুল আবেদন এই যে, নবাগত ব্যাংক এর কথা বিবেচনা করে আমাদেরকে “ইউনিয়ন কর্মকর্তা ” করা যায় কিনা- তা সদয় বিবেচনার জন্য জোর আবেদন জানাচ্ছি।

    মাঠ সহকারিগনদে পক্ষে
    রনজিৎ মন্ডল
    বানারিপারা, বরিশাল।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      িইউনিয়ন কর্মী করা হচ্ছে। তোমাদের পিডি এমডি তাকে না লিখে পরিষদকে কেন লিখেছ? পিডি

  13. jakir hossen,co/aa,madaripur sadar. says:

    হত দরিদ্র মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে প্রথমেই আমাদের তাদের অর্থ উপার্জনের কর্মক্ষেত্র গড়ে দিতে পারলেই তাদের ভাগ্যের চাকা ঘুরানো যাব।আর তা আমরা একটি বাড়ি একটি খামারের মাধ্যমেই করতে পারি । তাদের প্রকল্পভিত্তিক কাজে সম্পৃক্ত করে আত্নকর্ম সংস্থান সৃষ্টি করে দিতে পারলেই সাফল্য দেখা দিব।এই গরিব সদস্যরা সঠিকভাবে প্রকল্প অনুযায়ী কাজ করছে কি না তা আমাদের সব সময় খেয়াল রাখতে হবে। বিভিন্ন সময় তাদের কাজের উন্নয়নে জন্য সঠিক পরামর্শ দিতে হবে।প্রথমে আমরা এই কাজটি করতে পারলেই আমি মনে করি আমরা খুব অচিরেই দারিদ্র্য শূণ্যের কোঠায় নামিয়ে আনতে পারবো্। আমরা একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারী যুবক। আমরা কোন কাজে ভয় পাই না। আমরা সবাই এক সাথে কাজ করে এই দারিদ্র্যের হাত থেকে বাংলাদেশকে মুক্ত করবো্।

    দরিদ্র মানুয়ের সঞ্চয়,তাদের সমিতি থেকে ঋণ প্রদাণ, কিস্তি আদায় ,অনলানে আমরা প্রতিদিন পোষ্টিং ঋণ ক্রিয়েট,লোন ডিস্বার্স, ডাটা এন্টি করে যাচ্ছি। উপজেলা সমন্বয়কারী ও কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারীর অনলাইনে পোষ্টিং দিতে প্রায় দিনই রাত ৮টা পর্যন্ত সময় অফিসে থাকতে হয়। এই নিরলস প্রচেষ্টার ফলে আমরা তাদের অনলাইন ব্যাংকিং সেবা দিয়ে যাচ্ছি।যার কারনে আমাদের পারিশ্রমিক হিসাবে কমিশনের ব্যবস্থা আছে, প্রকল্প পরিচালক মহোদয়ের নিকট আকুল আবেদন আমরা যাতে কমিশন পেতে পারি তার সু-ব্যবস্থা করতে করতে মর্জি হয়।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      তোমার এ প্রতিশুতিকে আমি সম্মান করি। আমি এটা বিশ্বাস করি তোমরাই পারবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দারিদ্র মুকাত বাংলাদেশ গড়তে। তুমি বা তোমরা কমিশন পেয়েছ কিনা জানাও। পিডি

  14. Kalyan says:

    মতামত:
    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের শেয়ার ক্রয় করতে কিছু প্রয়োজনীয় শর্ত আরোপ করা হয়েছে।
    এক্ষেত্রে হস্তান্তরিত সম্পদ প্রাপ্ত সদস্য সম্পদ বাবদ নির্ধারিত অর্থ পরিশোধ না করলে শেয়ার ক্রয়ের য্যোগ্য হবেন না এই মর্মে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দেওয়া প্রয়োজন।

    মাঠ সহকারি,
    আলফাডাঙ্গা, ফরিদপুর।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      যিনি সম্পদের অর্থ সমিতিতে এখনও কিস্তিতে জমা দেয়নি তারতো সদস্য পদ থাকার কথা নয়। তিনি শুধু নন যিনি কোন রকম অনিয়মিত কাজ যেমন, সঞ্চয়, ঋণ, ও অন্য কোন বিষয়ে অনিয়মিত তিনি এ শেয়ার কিনতে পারবেননা। ধন্যবাদ তোমার এ অনুসন্ধানের জন্য। খুবই ভাল।পিডি

  15. sarup says:

    মজার ব্যাপারটা সবাইকে জানিয়ে দিতে চাই।।। একজন এনজিও কর্মী ১০জন মহিলা সদস্যা নিয়ে একটি গ্রামে সমিতি গঠনের প্রস্তাব দেন। সদস্যারা সবাই রাজি হয়। সদস্যাদের সবাইকে সপ্তাহে ২০থেকে৫০টাকা করে তিন মাস পর্যন্ত নিয়মিত সঞ্চয় জমা করতে বললেন, যখন জনপ্রতি ৫০০টাকা পর্যন্ত সঞ্চয় হবে তখন প্রত্যেক জনকে ৫০০০টাকা ঋণ দেওয়া হবে বলে জানিয়ে দেওয়া হয়। এনজিও কর্মীর মনে মনে মূল উদেশ্য ছিল ১সপ্তাহের মধ্যে ঋণ কার্যক্রম শুরু করা তবে তিন মাস পর্যন্ত বলার অর্থ হল সদস্যাদের মধ্যে হতে কোন দ্রুত ঋণের প্রস্তাব আসে কিনা তা যাছাই করা, যদি দ্রুত প্রস্তাব আসে তা ব্যবহার করা,,, , প্রস্তাবে আরো জানান যে সুদের হার খুবই কম অর্থাৎ অন্যান্য সাধারণ ব্যাংকের মত সুদ নেওয়া হবে, সপ্তাহে যে টাকা সঞ্চয় হবে তা এককালীন ফেরত দেওয়া হবে যা দিয়ে পরিবারে স্বচ্ছলতা আসবে। প্রস্তাবে আরো জানান যে, প্রতি সপ্তাহে কিস্তি খুব সহজে পরিশোধ করা যায়, কিস্তির বোঝা কম,, ,,,,, কিন্তু অত্যান্ত দূর্ভাগ্য গ্রামের হত দরিদ্র মহিলারা ঠিকই তিন মাস পর্যন্ত ধৈর্য্য ধরতে চায় না কারণ তাদের টাকা খুবই দরকার। তাদের নগদ টাকা প্রয়োজন। এতসব সুযোগ সুবিধার কথা শুনে হত দরিদ্র মহিলারা প্রস্তাবটি উপর আর একটি প্রস্তাব করল,,, প্রস্তাবটি হল- তিনমাসের সঞ্চয় বাবদ এককালীন জনপ্রতি ৫০০/- টাকা জমা করা হবে বিনিময়ে আগামী দু’চার দিনের মধ্যে ঋণ চাই,,,,যা এনজিও কর্মী মনে মনে চাইল তাই হলো। কর্মী সহজে রাজি হয়ে তিনজন সদস্যকে নেত্রী বানিয়ে পাশবহি তাদের হাতে দিয়ে সঞ্চয় আদায় শুরু করল,,,, সিদ্ধান্ত হল,,,আগামী সপ্তায় জনপ্রতি ৫০০০/-টাকা করে ১০জনকে মোট ৫০,০০০/-টাকা ঋণ বিতরণ করা হবে। তবে উল্লেখ্য যে, ১০জনের ৫০০টাকা করে সঞ্চয় মোট ৫০০০/-টাকা অর্থাৎ ১জন সদস্যের ঋণ বাবদ ৫০০০/-টাকা উক্ত ঋণ বাবদ বিতরনকৃত ৫০,০০০/-টাকার মধ্যে সংস্থান হয়ে গল। যা সুদে-মুলে সদস্যদের কাছে বিতরণ ও আদায় করা হবে। ঋণ বিতরণের সময় প্রতিজন থেকে ১০০/- টাকা করে আপদ কালীন তহবিল(অফেরত যোগ্য) মোট ১০০০/-টাকা কেটে নেওয়া হল! কোন সদস্য কিস্তি কালীন সময়ে মারা গেলে তার অফেরত যোগ্য ১০০টাকায় নাকি বাকি সব বকেয়া টাকা মাফ হয়ে যাবে!! কিন্তু সদস্য না মরলে ঐ ১০০টাকা ফেরত পাবে না। অর্থাৎ সদস্যারা ১০০০টাকার কোন হিসাব পাবে না। এনজিওদের দারিদ্র মানুষ শোষনের অভিনব কৌশল!!! ঋণের টাকা বিতরনের সময় বলা হয়েছিল কোনক্রমে কিস্তি খেলাপি করা যাবে না,,, বাড়িতে কোন সমস্যা হলেও কিস্তি বকেয়া চলবে না,,, বলে বার বার সর্তক করা হয়, নিয়মতি পরিশোধ করতে হবে এমন ওয়াদা নিয়ে ঋণের টাকা সদস্যাদের হাতে তুলে দেওয়া হলো, যদিও আসলের উপর প্রত্যেক সদস্য হতে ১২মাসঅর্থাৎ ১বছরের সুদের হার হিসাব করে আদায়ের জন্য সপ্তাহিক (আসল+সুদ+সঞ্চয়) কিস্তি নির্ধারণ করা হলো। কিন্তু পাশবহিতে ৫২সপ্তাহে কিস্তি না দিয়ে ৪৫/৪৬সপ্তাহে কিস্তি নির্ধারণ করে অর্থাৎ ১০মাসের মধ্যে কিস্তি পরিশোধের বন্দোবস্ত করা হয়। সদস্যদের জানিয়ে দেওয়া হয় গৃহীত ঋণ যদি নির্ধারিত সময়ের আগে অর্থাৎ টাকা উত্তোলনের পর হতে যে কোনদিন এককালীন সব টাকা পরিশোধ/ফেরত করলেও সুদেরঅংশের টাকা কমানো যাবেনা। যা গ্রামের হত দরিদ্র মানুষেরা সহজে অনুমান করতে পারেনা কেউ কেউ বুঝলেও দারিদ্রতার করাল গ্রাস থেকে মুক্তির আশায় নগদ টাকার বিশেষ প্রয়োজনে মুখবোজে সহ্য করে যায়। সদ্স্যদের কাছ থেকে আদায়কৃত কিস্তি(ঋণ+সুদ+সঞ্চয়) টাকা মাসের মধ্যে ৪বার হাত বদল করা হয়, চক্রকারে হিসাব করলে বহুবার বহু গ্রুফ/দলে হাত বদল হদে দেখা যায়। বাংলার গ্রাম মূলত কৃষি নির্ভর। বিশেষ করে শহরের তুলনায় গ্রামের মানুষেরা ক্ষুদ্র ঋণ গ্রহন ও ব্যবহার করে। কৃষি নির্ভর গ্রামের মানুষ এনজিও থেকে ক্ষুদ্র ঋণ নিয়ে স্বাবলম্বী হবে এমন আশা করাটা দুরাশা মাত্র কারন কৃষিতে উৎপাদনের ক্ষেত্রে দীর্ঘ মেয়াদে পুঁজি খাটাতে হবে সপ্তাহিক চড়া সুদে কিস্তি পরিশোধের মাধ্যমে কৃষি উৎপাদন সম্ভব নয়। সদস্যারা ঋণের টাকা নিয়া বাড়ি ফিরল।। কিন্তু টেনশন রয়ে গেল আগামী সপ্তায ঋণের কিস্তি (আসল+সুদ)পরিশোধ করতে হবে সাথে সঞ্চয়ও দিতে হবে! ১০জন সদস্যা হতে প্রতি সপ্তায় মাঠ কর্মী কর্তৃক যে টাকা(সঞ্চয়+ঋণ+সুদ) আদায় করা হয় তা অনুরুপ অন্য দলে আনুপাতিক হারে সুদে বিতরন করা হয় অর্থাৎ সদস্যদের মাঝে বিতরনকৃত ঋণ হতে ক্রমান্বয়ে বার্ষিক ৩০-৩৬% টাকা সুদ আদায় করা হয়। অন্যদিকে যে কাজের জন্য ঋণ নেওয়া হয়েছিল তা করা সম্ভব হয়নি কারণ স্বল্প সময়ে কোন প্রকল্প যথাযথ বাস্তবায়ন ও সফলতা আশা করা যায় না। এনজিওদের(মাইক্রোক্রেিডট) মূল লক্ষ্য ও উর্দেশ্য বেশি বেশি মুনাফা অর্জন করা ,,,,, অন্যদিকে একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মূল লক্ষ্য ও উদেশ্য হল দারিদ্রমুক্ত শোষনমুক্ত সুবিধা বঞ্চিতদের পাশে থেকে তাদের দারিদ্রতার করাল গ্রাস থেকে মুক্ত করে সমগ্র জাতি তথা বাংলাদেশকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করা এবং অত্নিনর্ভরশীল ও উন্নত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলা সুতরাং আমাদের সবাইকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মূল দর্শন,লক্ষ্য ও উদেশ্য নিয়ে তুলনামুলক সচিত্র প্রতিবেদন প্রকাশের মাধ্যমে হত দরিদ্র জনসমষ্টির মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করি এবং সকলের মাঝে আলোড়ন সষ্টি করি ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প দারিদ্রতার করালগ্রাস থেকে দরিদ্র মানুষ,পরিবার,সমাজ তথা জাতি ও দেশকে মুক্তি দিতে পারে। লেখকঃ স্বারুপ।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      তোমার এ সাহসী লেখার জন্য ধন্যবাদ। তোমার মত সকলেই যদি বুঝতো এনজিওর শভঙ্করের ফাকি তা হলে অনেক আগেই আমরা গরীবদের রক্ষা করতে পারতাম। আমাদের দুর্ভাগ্য- কেউ বুঝতে চায় না। তোমার ফোন ও ঠিকানা দিও আমি সবাইকে তোমার সাহসিকতার কথ বলতে চাই। গরীব মানুষটা তোমার ভাই তাকে রক্ষা করো। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এ আদর্শ প্রকল্পের পতাকাতলে সমবেত করো। তাদের বুঝাও এ প্রকল্পের সুবিধা। অর্থের মালিক তারা। ব্যাংকের মালিক তারা। পিডি

  16. sarup says:

    ক্ষুধা, দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে তিনটি বিষয় খুব বেশি গুরুত্ব পায়, যেমন- অর্থ, প্রশিক্ষণ ও শিক্ষা। অর্থঃ- পৃথিবীর সবকিছুর মূলে রয়েছে অর্থ। দারিদ্র শব্দটি বিশ্লেষণ করতে গেলে অর্থের কথাটি আগে চলে আসে। কথায় আছে, অর্থই মুুক্তি মিলে এবং অর্থই শক্তি মিলে। সুতরাং অর্থ দারিদ্র্যমুক্তির প্রথম চালিকাশক্তি।
    প্রশিক্ষণঃ- অর্থ সংস্থানের পাশাপাশি প্রশিক্ষণের বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। অঢেল অর্থ আছে কিন্তু অর্থের যথার্থ ব্যবহারের জন্য চাই প্রশিক্ষণ। অর্থের যথার্থ ব্যবহার না হলে, অর্থ অনর্থের মূল হয়ে দাঁড়ায়। কোনো কাজে অর্থ ব্যয়ের আগে ঐ কাজ সম্পর্কে ধারণা থাকতে হবে। যেমন, ব্রয়লার মোরগীর ফার্ম করতে গলে ব্রয়লার মোরগী কিভাবে পালন করতে হয় তা না জানলে লাভ তো দুরের কথা মূলধনও হারাতে হবে। সুতরাং প্রশিক্ষণ গ্রহনের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন করে অর্থ বিনিয়োগ করলে মুলধন হারানোর ভয় থাকে না।
    শিক্ষাঃ- শিক্ষার কোন বিকল্প নাই। কোনো কাজে অর্থ বিনিয়োগ করলে অর্থ অর্জন করা যায়, প্রশিক্ষণ গ্রহন করলে দক্ষতা অর্জন করা যায়, শিক্ষা ছাড়া কখনো মনুষ্যত্ব বিকাশ গড়তে পারে না। মানুষের মনুষ্যত্ব বিকাশ না ঘটলে অর্থ ও দক্ষতার কথা কখনো কল্পনা করা যায় না।
    উপরোক্ত তিনটি বিষয়ে গুরুত্ব দিলে মানুষ দারিদ্র্য কখনো থাকবে না। অবহেলিত, দারিদ্র, সুবিধা বঞ্চিত, অশিক্ষিত, স্বল্প শিক্ষিত ও ভূমিহীন জনগোষ্ঠি ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পে উপকারভোগী হিসেবে অর্ন্তভুক্ত করা হয়েছে। সুতরাং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের আওতায় প্রতিটি গ্রামে এক বা একাধিক গ্রাম উন্নয়ন সমিতি গঠনের মাধ্যমে দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে তাদের সঞ্চয়ের বিপরীতে সমপরিমাণ উৎসাহ বোনাস, ঋণ সহায়তা তহবিল দিয়ে অর্থ সংস্থানের ব্যবস্থা করে দেওয়া হচ্ছে। উক্ত অর্থের যথার্থ ব্যবহারের নিশ্চয়তা বিধানের মাধ্যমে দারিদ্র্য নির্মূলে অদক্ষ উপকারভোগীদের দক্ষতা অর্জনের জন্য প্রকল্প ভিত্তিক বিভন্ন ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে অর্থ সংস্থান করে দিয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ মানব সম্পদ তৈরী করে প্রতিটি পরিবারকে একটি উৎপাদনমুখি ইউনিট হিসেবে ধরে দারিদ্র্যতা স্বমূলে নির্মূল করার জন্য “একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক” গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখছে। বিনিময়ে বাংলাদেশের প্রতিটি ওয়ার্ডে গঠিত গ্রাম উন্নয়ন সমিতিসমুহের উপকারভোগী সদস্য/সদস্যাকে তাদের ছেলে মেয়েদের অবশ্যই স্বশিক্ষায় শিক্ষিত করে উপযুক্ত নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে হবে। তাহলেই বাংলাদেশের প্রতিটি দরিদ্র্য পরিবার থেকে দািরদ্র্যতা চিরতরে নির্মুল হবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      তোমার এ লেখার সাথে আমি একমত। তোমাদের মধ্যেও মেধাবী ও দক্ষ কর্মী আছে। তোমরা এগিয়ে আস। আরও লেখ। এটাকে একটা বিল্পবে রুপ দেও। সরকার তোমাদের সাথে আছে। আমরা তোমাদের সাথে আছি। স্বরুপ তোমার ঠিকানা ও ফোন নম্বর জানাও। ভার থেক। পিডি

  17. jakir hossen,co/aa,madaripur sadar. says:

    দারিদ্র্য বিমোচনে আমরা সবাই হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। এই মহান কাজে আমাদের সম্পৃক্ত করায় প্রকল্প পরিচালক মহোদয়কে জানাই সালাম। দারিদ্র্র্য বিমোচনে আমাদের দরকার সদ্বিচ্ছা আর মনোবল। আমরা প্রকল্পভিত্তিক কাজে গরিব জনগনকে সম্পৃক্ত করে দারিদ্র্য বিমোচনে ভূমিকা রাখছি। গরিব সদস্যদের শতভাগ অনলাইন সেবার মাধ্যমে তাদের ব্যাংকিং সেবা প্রদান করছি। আমরা কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী সবাই এই মাহান কাজে যোগদিয়ে নিজেদের ধন্য মনেকরছি। আমাদের সুযোগ দেওয়ার জন্য সকলের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধেয় প্রকল্প পরিচালক মহোদয়কে হাজারো সালাম ও শুভেচ্ছা।
    ০১৯১৪৬০৭৩২৪

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      জাকির ধন্যবাদ তোমাকে। তোমার ও স্বরুপের লেখা দেখে আমি সাহস বোধ করছি। আমার কোন ভয় নেই। আমি না থাকলেও তোমরা পারবে এবং অবশ্যই পারবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নরথ চালিয়ে নিতে। পারিপাশ্র্ম্বিক সবকিছু দেখে আমার খুব কষ্ট হচ্ছিল। কিন্তু আমি বেশ বুঝতে পারছি তোমরা সৈনিক বহিনী তৈরী হয়ে গেছ। এগিয়ে যাও। পরম করুনাময় ঈশ্বর তোমাদের সহায় আছেন্। আমি তোমাদের সফলতা কামনা করি। তোমার ফোন ও ঠিকানা পাঠাও।পিডি

  18. Alamgir hossain says:

    মাননীয় পিডি মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন,
    আমরা যারা কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী প্রতি উপজেলায় পদায়ন আছি, আমরা Online Banking সমুদয় কাজ আমাদেরকে করতে হয়,যথা-Cash Receive, Table banking,Member deposite entry,Lone repay entry,member entry,member edit,Lone sanction creat,Lone disburssment Request,আবার Pin code না পাওয়া গেলে Edit করে Pin Code আনতে হয়,Lone disburssment, Withdrow Request,Withdrow Request Approval,Sanction Approval Limit এর জন্যে Uno sir এর কাছে ফাইল ল্যাপটপ নিয়ে যেতে হয়,অফিস ব্যবস্থাপনার সকল কাজ,মাঝে মাঝে সমিতি পরিদর্শন,অফিসের সকল রেজিষ্টার লিপিবদ্ধকরণ,হিসাব সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ। বলতে গেলে online Banking এবং অফিস কার্য পরিচালনা করার জন্যে একজন কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারীর বিকল্প নেই। মহোদয় আমরাতো আপনার সন্তান বর্তমানে ফিল্ড সুপারভাইজারদের আমাদের ছেয়ে ২ গ্রেড বৃদ্ধি করার পর তারা অনেকে বলে তাদেরকে স্যার বলার জন্যে। সেইজন্য কাজের দিক এবং মানবিক দিক বিবেচনা করে আমাদেরকে অফিসের second Position রাখার জন্য আকুল মিনতি জ্ঞাপন করছি।
    Co Cum AA
    ০১৮১৫-৬৬৮২৮৩

    • jakir hossen,co/aa,madaripur sadar. says:

      100% ok

      • Ashrafunnahar says:

        100% Right

        • Nabarun Noskor says:

          ” Computer Operator Cum Account Assistants” are not against promotion of others but why they are the only unchanged post of EBRK project ?

          They are not for working for all projects and purposes of BRDB and many where without getting necessary equipments to make them to do so.

          Every work of online banking is done mainly by ” Computer Operator Cum Account Assistants”.

          So, ” Computer Operator Cum Account Assistants” want reasonable and legal change of their post also overcoming
          ” hated conspiracies” also.

          It is 100% right. Wherever, near or far – you are or may be.

          ( Nabarun Noskor,
          Member,
          Central Committee Of Computer Operator Cum Account Assistants,
          EBRK Project,
          Bangladesh. )

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      ব্যাংক হতে চলেছে। সেখানে সব গ্রেডিং পাল্টে ব্যালান্স করা হয়েছে। এটা খুবই দু:খজনক সিও কেন এফএসকে স্যার বলবে। ইউসিও বিষয়টি দেখবে। সেই উপজেলা অফিসে একমাত্র স্যার। ধন্যবাদ তোমার লেখার জন্য। পিডি

  19. Alamgir hossain says:

    মাননীয় পিডি মহোদয়ের কাছে আকুল আবেদন,
    আমরা যারা কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী প্রতি উপেজলায় পদায়ন আছি, আমরা Online Banking সমুদয় কাজ আমাদেরকে করতে হয়,যথা-Cash Receive, Table banking,Member deposite entry,Lone repay entry,member entry,member edit,Lone sanction creat,Lone disburssment Request,আবার Pin code না পাওয়া গেলে Edit করে Pin Code আনতে হয়,Lone disburssment, Withdrow Request,Withdrow Request Approval,Sanction Approval Limit এর জন্যে Uno sir এর কাছে ফাইল ল্যাপটপ নিয়ে যেতে হয়,অফিস ব্যবস্থাপনার সকল কাজ,মাঝে মাঝে সমিতি পরিদর্শন,অফিসের সকল রেজিষ্টার লিপিবদ্ধকরণ,হিসাব সংক্রান্ত যাবতীয় কাজ। বলতে গেলে online Banking এবং অফিস কার্য পরিচালনা করার জন্যে একজন কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারীর বিকল্প নেই। মহোদয় আমরাতো আপনার সন্তান বর্তমানে ফিল্ড সুপারভাইজারদের আমাদের ছেয়ে ২ গ্রেড বৃদ্ধি করার পর তারা অনেকে বলে তাদেরকে স্যার বলার জন্যে। সেইজন্য কাজের দিক এবং মানবিক দিক বিবেচনা করে আমাদেরকে অফিসের second Position রাখার জন্য আকুল মিনতি জ্ঞাপন করছি।
    Co Cum AA
    ০১৮১৫-৬৬৮২৮৩

  20. Kalyan says:

    স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম 2/3/15 সোমবার বিকেলে জাতীয় সংসদে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্নপ্রসূত একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে সারাদেশে ২৫ লাখ দরিদ্র পরিবারের১ কোটি ২৫ লাখ ব্যক্তিকে দারিদ্র বিমোচনে সেবা প্রদান করা হচ্ছে। এ প্রকল্প দেশের দরিদ্র ও প্রান্তিক চাষীদের তহবিল গঠনের কৃষি কাজে বিনিয়োগেরমাধ্যমে উৎপাদন বৃদ্ধি করে দারিদ্র্য বিমোচনে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা রেখে যাচ্ছে। এ প্রকল্প বর্তমানে দেশের সকলউপজেলার সব ইউনিয়নের প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে মোট ৪০ হাজার ৫২৭টি গ্রামে বাস্তবায়িত হচ্ছে।তিনি বলেন, এ প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য গ্রামেগ্রামে উপকারভোগী দরিদ্র জনগোষ্ঠীরঅংশীদারিত্বমূলকস্থায়ী পুঁজি গঠন করা। সমিতিভুক্ত উপকারভোগী সদস্যদের মাসিক ২শ’ টাকা সঞ্চয়ের বিপরীতে সরকারের পক্ষ থেকে মাসে ২শ’ টাকা উৎসাহ বোনাস প্রদান করা হয়। অন্যদিকে সদস্য প্রতি ২শ’ টাকা হারে বছরে সমিতির তহবিলে ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা ঘূর্ণায়মান তহবিলপ্রদান করা হয়। এভাবে প্রতি গ্রাম সমিতিতে ৮ থেকে ১০ লাখ টাকার স্থায়ী তহবিল গড়ে উঠেছে । এ তহবিল তাদের নিজস্ব ব্যাংক হিসাবে জমা থাকে। এটি তাদের স্থায়ী তহবিল, যা সরকার কখনোই ফেরৎ নেবে না।তিনি আরো বলেন, সারাদেশে সৃজিত ৪০ হাজার ৫২৭টি সমিতির মোট তহবিল ২ হাজার ১৬ কোটি টাকা যেখানে তাদের নিজস্ব সঞ্চয় ৬শ’ কোটি টাকা। সরকার প্রদত্ত উৎসাহ বোনাস ৬শ’ কোটি টাকা এবং প্রদত্ত ঘূর্ণায়মান তহবিল ৮১৬ কোটি টাকা। নিজেদের প্রয়োজন, নিজস্ব পেশা ও অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গ্রাম সংগঠনের সদস্যগণ অগ্রাধিকারভিত্তিতে তাদের চাহিদামাফিক ১৩ লক্ষাধিক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র আয়বর্ধক সমিতি গড়ে তুলেছেযেখানে বিনিয়োগ হয়েছে ১৫শ’ কোটি টাকা এছাড়া এ কার্যক্রমকে স্থায়ীরূপ দিতে ওগরিবের অর্থ কেউ যাতে নষ্ট করতে না পারে সেজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছেন। এ ব্যাংকের মালিক গ্রাম বাংলার খেটে খাওয়া দরিদ্র জনগোষ্ঠী। এ ব্যাংকের ১ টাকা লাভ হলেও তা পাবেন এ দরিদ্র জনগণ। এ প্রকল্প সম্প্রসারণের মাধ্যমে ২০২১ সালের মধ্যে দেশকে দারিদ্র্য শূন্য করার প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।দেশের সর্বশেষ দরিদ্র মানুষকে এ প্রকল্পভুক্ত করে দারিদ্র্য বিমোচন করা হবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      এটাই সত্য। সকলকে জানিয়ে দাও বেশী বেশী করে। পিডি

  21. Ranjit mondal says:

    Honourable Pd sir,
    Please permanent our job all EBEK family.

    Field assistance
    Banaripara,barisal.

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      তুমি কি ঘুমাও? ব্যাংক হয়েছে জানতো? তুমিকি ব্যাংকের স্টাফ হলে খুশি নও? পিডি

  22. Kalyan says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রবিধান হলো উক্ত ব্যাংকটি পরিচালনার সার্বিক নিয়ম-কানুন যা পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইনের উপর ভিত্তি করে তৈরি করা হয়েছে।
    অর্গানোগ্রাম হলো ব্যাংকটির কর্মকর্তা কর্মচারীর বিভিন্ন পদের নামকরণ ও মোট পদের সংখ্যাসহ পদগুলোর ক্রমবিন্যাসের তালিকা।
    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের প্রবিধান ও অর্গানোগ্রাম খুব শীঘ্রই মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পাবে বলে আশা রাখছি।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায় says:

      ব্যাংকের ধাঁচে পদ ও তার মান হবে। পিডি

  23. SUMON PALIT says:

    বাংলাদেশ কর্মাস ব্যাংক লিঃ এর প্রধান কার্যালয়ে আগুন লেগে প্রচুর ক্ষতি হয়েছে। আমরা সকলে উক্ত ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের সাথে সমবেদনা প্রকাশ করছি। মহান সৃষ্টিকর্তার কৃপায় ব্যাংকটি আবার তার নিজ অবস্থায় ফিরে আসবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      অন্যের দু:খ বা ক্ষতিতে সকলেই যেন এরুপ মহান আনুভূতি থাকে। পিডি

  24. শ্রদ্ধেয় পিডি স্যার,
    স্যার আমাদের উপজেলায় যে ব্রাড ব্যান্ড ইন্টারনেট কানেকশন প্রদান করা হয়েছে তাহা আমরা বিগত ০১/১২/১৪ তারিখ হতে আজ অবদি পর্যন্ত ইন্টার নেট ব্যবহার করতে পারছিনা , অনুপায় হয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসর এর কার্যালয়ের BTCL কানেকশনের ওয়াই ফাই লাইন ব্যবহার করছি, এর ফলে অনেক সময় আমারা কাঙ্খিত ইন্টার নেটের গতি পাচ্ছি না ফলে দৈন্দিন কার্যে প্রতিনিয়ত ব্যাঘাত হচ্ছে । স্যার দয়াকরে আমাদের ইন্টারনেট লাইন টি সচল করার ব্যবস্থা করলে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্ন প্রসুত প্রকল্প টির আরো বেশী উন্নয়ন ঘটানো সম্ভব হতো।

    বিশ্বজিৎ কুমার বিশ্বাস
    ফিল্ড সুপারভাইজার
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প,
    যশোর জেলার, শার্শা উপজেলা।

  25. Kalyan says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক এর প্রবিধান কখন প্রকাশিত হবে?

  26. jakir hossen,co/aa,madaripur sadar. says:

    বাংলাদেশকে ক্ষুধা,দারিদ্র্যমুক্ত গড়তে আসুন আমরা একসাথে কাধে কাধ মিলিয়ে কাজ করি। অবশ্যই আমরা বাংলাদেশকে দারিদ্র্য মুক্ত কররে পরাবো, আমরাই পারবো……………………………

    • Nabarun Noskor says:

      Kono sondeho nai issor gorib manusher sathe thakben…………………..

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      আমি তোমার দৃঢ়তার সাথে একমত ও সম্মান করি। পিডি

  27. jakir hossen,co/aa,madaripur sadar. says:

    প্রথমে সবাইকে শুভকামনা, আমি মাদারীপুর সদর উপজেলার কম্পিউটার অপারেটর কাম হিসাব সহকারী,আমি দেখেছি এক এক উপজেলায় এক এক ভাবে অফিসের বিভিন্ন রেজিষ্টার মেন্টেইন করে,ফলে কোন উপজেলার সাথে মিল খুজে পায়া যায়না। ফলে কারো সাথে তথ্য শেয়ার করা যায় না্।তাই প্রত্যেক উপজেলায় একই ধরনের রেজিষ্টার খাতাপত্রদি ব্যবহার করলে ভালো হয় ।

    ক/অ নিষ্ঠারসাথে তাদের দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে,অনলাইনে পোষ্টিং,লোন ক্রিয়েট,পরিশোধ, লোন বিতরণ, প্রতিদিন অর্থ লেনদেন, হিসাব-নিকাশ সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন করছে। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে আমাদের উপযুক্ত পদে নিয়োগে জন্য মহোদয়ের নিকট প্রার্থনা করছি।

    • aftab says:

      Dear PD/MD sir,
      Please include the ebek staff Computer Operator Cum Account Assistant replace the post of Officer(cash) by pally chanchoy bank.

      Regards,
      Aftab-Co,ebek(Islampur, Jamalpur)
      01712795256.

    • Nabarun Noskor says:

      computer ar online bank bad dia onehe afnerare khali cash dibar chay kia?Keure phuis kochilen ni?

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      রেজিস্টার সমূহ একই রকম হওয়া উচিৎ। ব্যাংক হলে রেজিষ্টার আমরা করে দিব। পদও ঠিকহবে। পিডি

  28. মিজান says:

    মাঠ সহকারীদের জন্য ল্যাপটপ কোন ব্যান্ডের কিনব, দাম কত হতে পারে?
    যারা কিনছেন তারা একটু জানান pls.

    • aftab says:

      Dear All,
      I inform you. Recently, our upazila’s ebek Field Assistants bought 10Pcs Laptop 15.6” HP Brand(Core i3 4th Generation Processor 4005u-1.9GHz) 4GB RAM & 500GB Storage . Price-35000/= By IDB BCS City ,Dhaka. pls test market.

      AFTAB-CO(Islampur,jamalpur)
      cell:01712795256.

      • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

        ধন্যবাদ পরস্পর সহযোগিতার জন্য। পিডি

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      কেউকি জানিয়েছে তোমায়? পিডি

  29. মিজান says:

    পাছে লোকে কিছু বলে
    কামিনী রায়

    করিতে পারি না কাজ
    সদা ভয় সদা লাজ
    সংশয়ে সংকল্প সদা টলে,-
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    আড়ালে আড়ালে থাকি
    নীরবে আপনা ঢাকি,
    সম্মুখে চরণ নাহি চলে
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    হৃদয়ে বুদবুদ মত
    উঠে চিন্তা শুভ্র কত,
    মিশে যায় হৃদয়ের তলে,
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    কাঁদে প্রাণ যবে আঁখি
    সযতনে শুকায়ে রাখি;-
    নিরমল নয়নের জলে,
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    একটি স্নেহের কথা
    প্রশমিতে পারে ব্যথা,-
    চলে যাই উপেক্ষার ছলে,
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    মহৎ উদ্দেশ্য যবে,
    এক সাথে মিলে সবে,
    পারি না মিলিতে সেই দলে,
    পাছে লোকে কিছু বলে।
    বিধাতা দেছেন প্রাণ
    থাকি সদা ম্রিয়মাণ;
    শক্তি মরে ভীতির কবলে,
    পাছে লোকে কিছু বলে।

  30. মিজান says:

    “একটি বাড়ি একটি খামার অর্ধেক আমার অর্ধেক তোমার”
    এ কথাটি সম্পূর্ণ সত্য, তাতে কোন ভুল নাই।
    উপকারভোগীর প্রতি মাসে সঞ্চয় ২০০ টাকা, সরকারের কল্যাণ অনুদান ২০০টাকা, মোট ৪০০ টাকা
    বছর শেষে সমিতি প্রতি ১,৫০,০০০ টাকা আবর্তক তহবিল এভাবে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের প্রতিটি সমিতির মূলধন ঘঠিত হয়। উক্ত মূলধন ৮% সার্ভিস চার্জে সমিতির উপকারভোগীদের মাঝে ঋণ বিতরণ হয়।

    আসলেে এইসব মন্তব্য যারা করে তারা আসলে দেশ ও দশের ভাল চায় না।
    তারা দলে
    “ করিতে পারি না কাজ
    সদা ভয় সদা লাজ
    সংশয়ে সংকল্প সদা টলে,-
    পাছে লোকে কিছু বলে।” (কামিনি রায়)

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      ধন্যবাদ মিজান তোমার সাহসী মতামতের জন্য। সকলকে এভাবে সংঘঠিত করো। পিডি

  31. মিজান says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কর্যক্রম কখন শুরু হবে?
    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের কর্মকর্তা/কর্মচারীদের তালিকা কখন প্রকাশ করা হবে?

  32. Iqbal hoq says:

    মনোজিত ভাই আপনি SID তে গিয়ে কয়েকদিন আগের তারিখ দিয়ে একটু দেখবেন আশা করি আপনি পাবেন।

  33. Narayan Dash says:

    ১। একজন সদস্যের স্থলে একজন সদস্য অর্ন্তভূক্ত করা হচ্ছে, কিন্তু উক্ত সদস্য কোড কতবার পরিবর্তিত হয়েছে তার সঠিক তথ্য সফটওয়্যারে সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই।

    ২। সমিতির সদস্যের সদস্য পদ প্রাপ্তির তারিখ ও প্রত্যাহারের তারিখ সংরক্ষণের ব্যবস্থা নেই।

    ৩। লোন রিপেমেন্ট এর ক্ষেত্রে একজন সদস্যর ঋণের টাকা পোষ্টিং করার সময় অন্তত তিনবার অনলাইন ব্যাংকিং সফটওয়্যারে একাউন্ট কারেন্ট ব্যালেন্স দেখতে হয় এবং তিনবার টাকা পোষ্টিং দিতে হয়, এতে সময় বেশি ব্যয় হচ্ছে। পার্বত্য জেলাগুলোতে এই রিপোর্ট দেখতে ভোগন্তির চরম শিকার হতে হচ্ছে। এই রিপোর্ট যদি একবারে দেখা যায় তাহলে সময় কম লাগবে।

    • Alamgir hossain says:

      অনেক কাজ করি কিন্তু কাজের মুল্যয়ন পাইনা, অনলাইন সংক্রান্ত প্রায় 90 % কাজ করি, অফিস ব্যবস্থাপনা সকল কাজ,কম্পিউটার সংক্রান্ত সকল কাজ,হিসাব সঙক্রান্ত সকল কাজ, অফিসের অন্যানেরা যখন বসে থাকে, তখন ও আমার কাজ থামেনি, প্রায় দিনই ফজরের নামায পড়ে কাজ ধরি ,অনেক সময় রাত ৮.০০ টা বেজে যায় তারপরও কাজ শেষ হয়না। তবে এটা বিশ্বাস করি যে,মহান বিধাতা আমাদের সম্মানিত পিডি মহোদয়ের মাধ্যামে সকল কম্পিউটার অপারেটরদের ভাগ্য পরিবর্তন হবে।কাজ করলে কাজের মুল্যয়ন অবশ্যেই পাবো। 100%

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      পার্বত্য এলাকায় ইন্টারনেট খবিই দুর্বল। ত্রপরও তোমরা এটা করো কত কষ্ট করে। আমি তোমাদের প্রতি কৃতঞ্জ। আমি জানি তোমরা পারবে। পিডি

  34. Md. Mahmudul Hasan says:

    মাষ্টাররোলে যদি কোন সমস্যা না থাকে তাহলে দেখেন ভূলবশতঃ অন্য কোন সদস্যর নামে লোন ক্রিয়েট করতে গিয়ে তাদের নামে লোন ক্রিয়েট করেছেন But Loan Disburs করেননি (03731912016 ati SID Number) ।

  35. sarup says:

    বান্দরবান জেলার লামা উপজেলায় বিআরডিবি’র নামে বরাদ্ধকৃত কোন রকম তিনটি টেবিল বসানো যায় এমন একটি ছোট্ট কক্ষে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অফিস কার্যক্রম চালানো হচ্ছে,,,,,,, ইউসিও,এফএস, সিওএএ ও এফএ সহ মোট ১১জন কমর্কর্তা/কর্মচারী ছোট্ট অফিস রুমে এক সাথে বসে কার্যক্রম চালাতে পারছে না। অফিস কক্ষে কোন রকম ৪/৫ জন বসতে পারে বাদ বাকিদের দাঁড়িয়ে অফিস করতে হয়। এমন পরিস্থিতিতে প্রকল্পের কার্যক্রম দারুনভাবে ব্যহত হচ্ছে। উল্লখ্য যে, অত্র লামা উপজেলা বান্দরবান জেলার মধ্যে সবচেয়ে বড় উপজেলা যেখানে ৭টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা রয়েছে। মাননীয় পিডি স্যারের নিকট আমাদের আকুল আবেদন অত্র উপজেলায় দ্রুত নিজস্ব প্রকল্প অফিস ভবন নিমার্ণ করতে মহোদয়ের সুদৃষ্টি কামনা করছি।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      তোমার ভবনের জায়গা বরাদ্দ পেয়েছ কি? অফিসতো ১০০ হয়ে গেছ্। ২০০ কাজ চলমান।

  36. Md. Mahmudul Hasan says:

    ভাই
    মাষ্টাররোলে যদি কোন সমস্যা না থাকে তাহলে দেখেন ভূলবশতঃ অন্য কোন সদস্যর নামে লোন ক্রিয়েট করতে গিয়ে তাদের নামে লোন ক্রিয়েট করেছেন But Loan Disburs করেননি। যদি এমনটা না হয় তা হলে অবশ্যই মাষ্টাররোলে লোন দেখানো আছে।

  37. Md. Mahmudul Hasan says:

    অত্র ত্রিশাল উপজেলার ভাটিদাশ পাড়া গ্রাম উন্নয়ন সমিতি সভাপতি, আকবর মৃধা, আজ ১০/০২/২০১৫ তারিখ সড়ক দূঘটনায় মৃত্যু বরণ করেছেন। তার আত্মার মাকফিরাৎ কামনা করি। শোকাহত পরিবারের জন্য সকলের কাছে দোয়া চাই।

    সমিতির সদস্য ঋণ থাকাকালীন অবস্থায় যদি মারা যায় এবং উক্ত সদস্যের ঋণ পরিশোধ করার মতো উপার্জনকারী কেউ নেই। এমতাবস্থায় কি করতে পারি। জানালে কৃতার্থ হবো।

  38. Monojit says:

    সুমন ভাই

    আগে দেখুন সমিতির ওপেনিং ডেট ঠিক আছে কিনা, যদি ঠিক থাকে তাহলে টাকা ট্রান্সফারের যে মাষ্টারোল পাঠিয়েছেন তাতে ভূল পোষ্টিং হয়েছে কিনা উপরন্তু লোন রিপেমেন্টে গিয়ে দেখুন লোন পরিশোধ আছে কিনা।
    আশাকরি হয়ে যাবে।

    ধন্যবাদ

    • SUMON PALIT says:

      সমিতির ওপেনিং ডেট ঠিক আছে। আগেই বলেছি দাদা, সমিতিটি এই প্রথম ঋণের জন্য আবেদন করেছে। মাষ্টাররোলও ঠিক আছে।

  39. Ranjit mondal says:

    Honourable PD(MD) sir,
    your outlook is vast & positive. We are working to reduce poverty. We seeing to dream ,how is possible prosper in life by poor people. Our all activities is on-line. It is our wonderful achievement all over the world.If we can set up ( psb) branch all of Union porisod, it will be role model all over the world . For this polli sanchayi bank, we shall overcome “Noble Prize” one day in future. I am over sure it’s will be TRUE .
    Field assistance
    Ranajit mondal
    Banaripara,barisal.

  40. SUMON PALIT says:

    বিসিবিএল এর লোকেরা নিজেদের কি মনে করে বুঝতে পারিনা। বলি একটা বুঝে আরেকটা আলীক্ষ্যং গ্রাম উন্নয়ন সমিতি এই প্রথম ঋণের জন্য আবেদন করেছে। LOAN CREAT করতে গিয়ে কয়েকজন সদস্যকে দেখাচেছ 1 error has occurred
    ORA-20001: This Member Already Has an Unadjusted Loan. So This Member ( 03731912016 ) is not Permitted For New Loan. ফোন দিলাম সোজাসুজি বললাম পুরাতন সমিতি এই প্রথম ‍ঋণের জন্য আবেদন করেছে । লোন ক্রিয়েট নিচ্ছে না কি করা যায়। প্রথম জন সমাধান দিতে পারে নাই তাই আরেকজনকে দিল। মাষ্টাররোলেও কোন সমস্যা নাই। আশাব্যঞ্জক কোন সমাধান দিতে পারল না। বরং নেটের সমস্যা, আমাদের বোঝার সমস্যা, আরো কত সব অনাকাঙ্কিত কথা বলে। তখন খুব খারাপ লাগে। এখন সমিতির সদস্যরা ঋণের জন্য বেশি জ্বালাতন করছে। এই অবস্থায় কি করা যায়, সমাধান দিলে উপকৃত হব।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      তোমার সমস্যা নিশ্চই মিটেছে। তাদের সফটওয়্যার ঠিক করা হয়েছে। পিডি

  41. sarup says:

    পার্বত্য জেলা গুলোতে যোগাযোগ ব্যবস্থা ভাল না থাকায় সমিতি পর্যায়ে ভ্রমন করতে অনেক কষ্ট হচ্ছে। বিশাল এলাকা নিয়ে এক একটি সমিতি গঠিত হওয়ায় একটি সমিতিতে একই দিনে একাধিক স্থানে বৈঠক করতে হয়। প্রতিদিন ভাড়া গাড়িতে চড়ে তারপর ৩/৫কিমি পর্যন্ত পায়ে হেঁটে সমিতি ভ্রমন করতে হয়। পরিশ্রম, সময় ও অর্থ খুবই ব্যয় হয়। পার্বত্য এলাকায় আমরা যারা অক্লান্ত পরিশ্রম ও নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি, আমাদের আকুল আবেদন অত্র পার্বত্য ও দুর্গম এলাকা হিসেবে আলাদা করে টিএ/ডিএ প্রদান করলে সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীর মধ্যে আরো কর্মচাঞ্চলতা ও কর্ম দক্ষতা ফিরে আসবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      টিএ ডেএর ব্যবস্থা হয়েছে কি? নাহলে হিসাব শাখা ও ডিপিডি অর্থ ব্যবস্থা নিবে। পিডি

  42. Narayan Dash says:

    এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাবেনাকো তুমি,
    যেথায় আছে
    “একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প”
    সে শুধু আমার জন্মভূমি।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      ধন্যবাদ তোমার দেশপ্রেম বোদের জন্য। এটা জাগ্রত থাকুক। পিডি

  43. Md. Mahmudul Hasan says:

    গতকাল রাতে অত্র ত্রিশাল উপজেলায় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অফিস সহ প্রায় সকল অফিসে কে বা করা অফিসের সকল রুমের তালাগুলো সোপারগ্লু ও বালি দিয়ে নষ্ট করেছিল।

  44. subas mondol says:

    Bhedargonj upozela, Shariatpur.palli sanchoy bank hoyai sokol ke anek anek soveccha & avinondon.

  45. Md. Mahmudul Hasan says:

    Amra bank Asia’r agent, last 02/07/2014 tarikh agent commission payasilam,(Dc Deposits @ Agent Commission From Dated 01.01.14
    To 24.05.14) PD office thake bola silo proti 3 months por por commission dibe, kintu Bank Asiar protinidider kase jante chaile bole a bapare janena, Ashole ki amra commission R pabona, pale kobe pabo, judi kaw janen likhben plz.

    • Narayan Dash says:

      ইউসিবিএল ব্যাংকের হয়ে কাজ করছি গত জুলাই/২০১৪ হতে এখনও এজেন্ট কমিশন পাইনি। কবে পাবো কিছুই জানিনা।

      • মিজান says:

        Bcbl এর সাথে কাজ করিছ ৯মাস হল কমিশনের কোন খবর নাই।

        • অনলাইন ডাটা এন্ট্রি টাকা পূর্বে ৫ টাকা করে দেয়া হতো। চলতি বছরে বলা হলো ২ টাকা করে দিবে। কিন্তু সেটাও কি পাবো। ব্যাংকের কমিশনের ব্যাপারে বাংক বলে আপনাদের হেড অফিসে যোগাযোগ করেন।

    • Nabarun Noskor says:

      Eta EBEK a’r constant post Computer Operator Cum … der thakar jonno kina ta janina.

      • Nabarun Noskor says:

        Constant post ( Computer Operator Cum … mane holo : EBEK abong BRDB a’r somosto project abong purpose a’r jonno poribortonhin kamla : ja kokhonoe poribortonio noy.

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      না পেয়ে থাকলে জানাও।

  46. Iqbal hoq says:

    মাহমুদুল হাসান ও মনোজিত ভাই আপনাদের ধন্যবাদ । হ্যা আমি পেরেছি।

  47. রবিউল says:

    ৩১/০১/২০১৫ তারিখে কুড়িগ্রাম জেলার নাগেশ্বরী উপজেলাধীন একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক এর অধীনে নব গঠিত সমিতির ৫০ জন সভাপতি ও ম্যানেজার নিয়ে “একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প : দারিদ্র বিমোচনে নতুন অভিযাত্রা” শীর্ষক দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ কোর্স অনুষ্ঠিত হয়।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      ধন্যবাদ। অন্যেরা লেখে না কেন?

  48. Md. Mahmudul Hasan says:

    Iqbal hoq Vai,
    Amar jotodur mone hoy Aponi ukto member ar name Loan creat kore silen kintu disbus request korn ni tar karone Loan `0~ dakhache, SID Information a jan dhakban SID porese,

  49. Iqbal hoq says:

    একজন সমিতির সদস্য ঋণ থাকাকালীন অবস্থায় মারা গিয়েছেন । উক্ত সদস্যের ঋণ পরিশোধ করার মতো উপার্জনকারী কেউ নেই। এমতাবস্থায় কি করতে পারি। জানালে কৃতার্থ হবো।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      সমিতির তহবিল। সমিতিই সিদ্ধান্ত নিবে। তোমরা চেষ্টা করবে গরীবের উত্তরাধিকারী যেন সমিতিতে থাকতে পারে।

  50. Monojit says:

    ইকবাল ভাই

    যদি একজনের ক্ষেত্রে হয় তাহলে বলার নেই কিন্তু যদি সবার ক্ষেত্রে হয় তাহলে আপনার সমিতির ডেট ঠিক করা হয় নাই নতুবা পোষ্টিং এ কোথাও গড়বড় করেছে এশিয়া ব্যাংক।

    ধন্যবাদ

  51. Iqbal hoq says:

    উক্ত সদস্য পূর্বে কোন ঋণ নেয় নাই । এ ক্ষেত্রে কি করতে পারি। কিন্তু লোন রিপেমেন্ট এ কোন টাকার অংক দেখায় না শুধূ 0 দেখায় ।

  52. Maidul Islam(FS),Mithapukur,Rangpur. says:

    সামাজিক পুঁজি গঠন সামাজিক তথা রাজনৈতিক অস্থিরতা নিরসনে ভূমিকা রাখতে পারে …….
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে অর্থনৈতিক লেনদেনের পাশাপাশি মাল্টিডায়মেনশনাল ডেভলপমেন্ট বা বহুমাত্রিক উন্নয়নের কথা বলা হয়েছে। বহুমাত্রিক কার্যক্রমের অংশ হিসেবে সামাজিক পুঁজি গঠন আমাদের কাঙ্ক্ষিত উন্নয়নের ক্ষেত্রে যেমন জ্বালানি যোগাতে সক্ষম হবে তেমনি একটি সুখী সমৃদ্ধ দেশ গঠনে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখবে। সামাজিক পুঁজি নিয়ে আমাদের জানার ব্যাপক অবকাশ রয়েছে। মার্কিন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী রবার্ট ডি পুটনাম সামাজিক পুঁজির সংজ্ঞা দিতে গিয়ে বলেছেন, “Social capital refers to features of social organization such as trust norms and networks that can improve the efficiency of society by facilitating co-ordinated action.”( অর্থাৎ সামাজিক পুঁজি হচ্ছে পারস্পরিক আস্থার, প্রথাসিদ্ধ আচরণের ও সামাজিক সম্পর্ক জালের মতো সামাজিক সংগঠনের বিশেষত্বসমূহ, যা সমন্বিত কার্যকলাপ সহজ করে সমাজের কার্যকারিতা বাড়িয়ে দেয়। ) Fukuyama ‘Social capital’ সমন্ধে বলেছেন, “সামাজিক পুঁজি হলো কিছু অপ্রাতিষ্ঠানিক মূল্যবোধ ও নীতির ভাগাভাগি, যা সমাজের সদস্যের মধ্যে একে অন্যের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করতে সাহায্য করে এবং একে অপরের প্রতি একটি বিশ্বাসের জন্ম দেয়। এই বিশ্বাস লুব্রিকান্টের ভূমিকা পালন করে, যা সংগঠনগুলোকে আরও কার্যকরভাবে চলতে সাহায্য করে। “পুটনাম অবশ্য তাঁর ‘Making Democracy Work : Civic Traditions in Modern Italy’গ্রন্থে দেখিয়েছেন, সামাজিক পুঁজির তারতম্যের ফলে ইতালির উত্তর ও দক্ষিণে ভিন্ন ধরণের রাজনৈতিক কৃষ্টি ও সংগঠন গড়ে উঠেছে।
    যেখানে সামাজিক পুঁজি অপ্রতুল সেখানে গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা শিকড় গাড়তে পারে না। বাংলাদেশের ইতিহাস বিশ্লেষণের ক্ষেত্রেও এ ধরণের ব্যাখ্যা দেওয়া হয়েছে। এ ব্যাখ্যার মূল বক্তব্য হলো যে, বাংলাদেশে গ্রামীণ বসতি কাঠামো দক্ষিণ এশিয়ার বেশিরভাগ অঞ্চল থেকে ভিন্ন। পানির সহজপ্রাপ্যতা এবং বন্য পশুর আক্রমণের তীব্রতা কম হওয়ার ফলে এখানে তৃণমূল পর্যায়ে সংগঠনের সার্বিক প্রয়োজন কম ফলে এখানে গ্রামগুলো হচ্ছে উন্মুক্ত ( Open Village)। এসব গ্রামের সংগঠনগুলো মূলত সামাজিক দায়িত্ব পালন করে। কিন্তু তাদের প্রশাসনিক ও অর্থনৈতিক ভূমিকা রয়েছে সীমিত। পক্ষান্তরে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যান্য অঞ্চলে গ্রামগুলো ছিল প্রাতিষ্ঠানিকভাবে সংঘবদ্ধ(Corporate),যাদের অনেক বেশি প্রশাসনিক ও অর্থনৈতিক দায়িত্ব ছিল ফলে ঐতিহাসিকভাবে বাংলাদেশে গ্রামীণ সংগঠন ছিল অত্যন্ত দূর্বল। তাই বাংলার ইতিহাসে এত রাজনৈতিক অস্থিরতা দেখা যায়। এই তত্ত্বের সমালোচকেরা বলে থাকেন, ঐতিহাসিক ব্যাখ্যা হিসেবে এ বক্তব্য সত্য ধরে নিলেও প্রশ্ন থেকে যায় যে, সামাজিক ও আর্থিক জীবনে পরিবর্তনের সাথে সাথে বাংলাদেশে সামাজিক পুঁজির কোনো উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন হয়েছে কি না? সামাজিক পুঁজি সম্পর্কে সাম্প্রতিক যেসব গবেষণা হয়েছে, তাতেও বাংলাদেশে সামাজিক পুঁজির অপ্রতুলতার সমর্থন মিলেছে।1980 এর দশকে অধ্যাপিকা ইউএবি রাজিয়া আকতার বানু দেখিয়েছেন যে, বাংলাদেশে পারস্পরিক আস্থা অত্যন্ত কম, তাঁর সমীক্ষা থেকে দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশে গ্রামাঞ্চলে মাত্র 4.5% জনগোষ্ঠী একে অপরকে বিশ্বাস করে,শহরাঞ্চলে পারস্পরিক আস্থার হার মাত্র 2.5%। প্রতি তুলনায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে গ্রামাঞ্চলে 37 শতাংশ ও শহরাঞ্চলে 44.9 শতাংশ লোক একে অপরকে বিশ্বাস করে। 1990 এর দশকে এ সম্পর্কে গবেষণা করেছেন পিপ্পা নারিস। তাঁর সমীক্ষায় দেখা যায়, বাংলাদেশে সামাজিক আস্থার হার 20 শতাংশ,নরওয়ের ক্ষেত্রে এই হার 65 শতাংশ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্ষেত্রে 35 শতাংশ। সাম্প্রতিক গবেষণাগুলোও বাংলাদেশে দীর্ঘদিন ধরে বিরাজমান সামাজিক পুঁজির ঘাটতি সম্পর্কে অনুমান সমর্থন করে। বিশ্বের 80 টি দেশের গড় সামাজিক পুঁজির তুলনায় (27.6%)বাংলাদেশের সামাজিক পুঁজির পরিমাণ কম (23.5%)। গড়ে ভারত ,চীন ও পাকিস্তানে মানুষ বাঙ্গালীদের তুলনায় একে অন্যকে অনেক বেশি বিশ্বাস করে।
    তত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও বাংলাদেশের একজন প্রবীণ প্রাজ্ঞ অর্থনীতিবিদ ড: আকবর আলী খান মনে করেন, “সামাজিক পুঁজির ঘাটতি ইতিহাসের অমোঘ বিধান নয়, তবে সামাজিক পুঁজি গড়তে অনেক সময় লাগে।এ ক্ষেত্রে দুই ধরণের নীতি অনুসরণ করা যেতে পারে। প্রথমত যেখানে সামাজিক পুঁজির ঘাটতি রয়েছে সেখানে তৃণমূল পর্যায়ে সামাজিক সংগঠন গড়ে তোলার উদ্যোগ নেওয়া যেতে পারে।” তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশে বেসরকারি সংগঠনগুলোর উদ্যোগে তৃণমূল সংগঠন গড়ে ওঠার ফলে এখানে সামাজিক পুঁজি ক্রমেই বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। দ্বিতীয়ত যেখানে সামাজিক পুঁজি গড়ে উঠেছে সেখানে তাদের উৎসাহিত করতে হবে। এই ঘাটতি মেটানোর প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে উপলব্ধি অত্যন্ত জরুরি। ড: আকবর আলী খানের কথার সূত্র ধরেই আমরা যদি আমাদের এবাএখা প্রকল্পের আওতায় গঠিত গ্রাম সংগঠনগুলো আরো বেশি সামাজিক সংগঠনরুপে পরিচালনা করতে পারি তাহলে সামাজিক পুঁজি নিশ্চিতভাবে বেড়ে যাবে। আসলে আমাদের সমাজে ঐক্যবদ্ধতার অভাব, পারস্পরিক আস্থা ও বিশ্বাসের যে অভাব, পারস্পরিক সৌহার্দ্যপূর্ণ সম্পর্কের যে অভাব এ সমস্ত অভাব পূরণ হলেই মূলত সামাজিক পুঁজি গঠন নিশ্চিত হবে।
    আমরা যদি সামাজিক পুঁজি গঠন নিশ্চিত করতে পারি সমাজে যেমন একটি স্থিতিশীল পরিবেশ নিশ্চিত হবে তেমনি রাজনৈতিক ক্ষেত্রেও অস্থিরতা ও বিশ্বাসহীনতা আর থাকবে না। তাই আমাদের প্রকল্পের আওতায় গঠিত গ্রাম সংগঠনগুলোকে যদি এক একটি গ্রামের উন্নয়নের মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই এবং যাতে সেই সংগঠনগুলোর মাধ্যমে গ্রামের সকল উন্নয়নের পাঠ সূচিত করতে পারি এজন্য আমাদের মাল্টি ডায়মেনশনাল ডেভলপমেন্ট এবং সামাজিক পুঁজি গঠনে অবশ্যই সচেষ্ট হতে হবে। নইলে আমরা সমাজের চোখে,দেশের চোখে শুধুমাত্র আর্থিক কারবারী ছাড়া অন্যকিছু হিসেবে বিবেচিত হব না। পরিশেষে সামাজিক পুঁজি সম্পর্কে Borner Hath-E-Khori এর একটি চমৎকার মতামত দিয়ে শেষ করতে চাই, তিনি বলেছেন “আমাদের সমাজের শক্তি হলো সামাজিক পুৃঁজি। সামাজিকতা আমাদের এক করবে, আশা দেবে, সমাজ ভরসা করবে সামাজিক মানুষদের কাছে। আর সামাজিকেরা তাদের সুপ্ত শক্তিকে বের করে এনে মানুষ বাঁচাতে দেশ গড়তে নিয়োজিত করবে নিজের মেধাকে।সামাজিকদের চিন্তাশীল পরিবর্তনে সমাজে সামাজিক পুঁজির সমবায় ঘটবে এবং সমাজে শান্তির সুবাতাস বইবে। ”
    (বিশেষ দ্রষ্টব্য : পরিসংখ্যানগুলো ড: আকবর আলী খানের লেখা থেকে নেয়া)

    মো: মাইদুল ইসলাম
    ফিল্ড সুপারভাইজার
    মিঠাপুকুর,রংপুর।

  53. shajalal says:

    আমরা সিলেটবাসী খুবই গর্বিত ও আনন্দিত।

    নবগঠিত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে সিলেটে বিভাগের সিলেট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান জনাব আশফাক আহমেদ কে পরিচালক পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এর মধ্যে এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।
    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন, ২০১৪ এর ১১ ধারার (১) উপ-ধারার (ঙ) এবং (চ)-এর বিধান অনুযায়ী এ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। গত ২ জুলাই জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন-২০১৪’ জাতীয় সংসদে উত্থাপন করলে তা পাস হয়। এই আইনের বিধান অনুযায়ী এ ব্যাংকের ৪৯ শতাংশ মালিকানা থাকবে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের সুবিধাভোগী সমিতিগুলোর হাতে এবং অবশিষ্ট ৫১ শতাংশ সরকারের হাতে। ব্যাংকের মূলধন হবে এক হাজার কোটি টাকা। ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের আওতাধীন সমবায় সমিতিগুলো এ ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার হবে এবং এর বাইরে অন্য কোনো সমবায় সমিতি এর শেয়ারহোল্ডার হতে চাইলে পরিচালনা পর্ষদের অনুমতি লাগবে। ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদের সদস্য সংখ্যা হবে ১৫। তাদের ৮ জন সরকার মনোনীত এবং বাকি ৭ জন সমিতিগুলো থেকে আসবেন। সদস্যদের মধ্যে থেকেই একজনকে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেবে পর্ষদ। তবে এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নিতে হবে। এই ব্যাংকের অনুমোদিত এক হাজার কোটি টাকা মূলধন প্রতিটি একশ’ টাকার ১০ কোটি সাধারণ শেয়ারে সমভাবে বিভক্ত হবে। তবে সরকারের অনুমোদনক্রমে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সময়ে সময়ে এ মূলধন বাড়াতে পারবে। খুব শিগগিরই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক পূর্ণাঙ্গভাবে আত্মপ্রকাশ করবে এবং ধীরে ধীরে দেশের প্রতিটি উপজেলায় এর শাখা হবে। পরবর্তীতে ধীরে ধীরে তা ইউনিয়ন এবং গ্রাম পর্যায়ে বিস্তৃত করা হবে বলে, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।
    আমরা একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্প, উপজেলা সমন্বয়কারী, শ্রীমঙ্গল উপজেলা, ও মৌলভীবাজার জেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীদের পক্ষ থেকে অভিন্দন রইল। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে সিলেটে বিভাগের সিলেট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান জনাব আশফাক আহমেদ কে পরিচালক পদে নিয়োগ পেয়েছেন বলে আমরা খুবই গর্বিত ও আনন্দিত।

  54. Mazidul Islam says:

    একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীদের জানাই নতুন বছরের প্রান ঢালা অভিন্দন ও শুভেচ্ছা শুভ নবর্বষ। সকলের সদয়,অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী দেশ দরদী জননেত্রী শেখ হাসিনার উদ্যেগে এদেশকে দারিদ্র মুক্ত উন্নত দেশে পরিনত করার জন্য যে প্রকল্প হাতে নিয়েছিল তার প্রাতিষ্ঠানিক রুপ হল “পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক” এই ব্যাংকের একটি চলমান প্রক্রিয়া হল একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প যা এদেশকে দারিদ্র মুক্ত করার কাজে অগ্রহনি ভুমিকা পালন করছে। কিন্তুু বিরোধি দলীয় নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া জাতির উদ্দেশে দেওয়া ভাষনে স্পষ্ঠ করে বলেছেন বর্তমান সরকারের আমলে যত গুলো প্রতিষ্ঠান তৈরি হয়েছে, তার সবগুলো নিশ্চিন্ন করে দেওয়া হবে, সর্বপ্রথম নিশ্চিন্ন করতে চেয়েছে একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে, তাই যদি হয় তাহলে, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন দারিদ্র মুক্ত উন্নত সোনার বাংলা গড়া কোন দিন ও সম্ভব হবে না, তাই মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর উচিত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকটিকে চিরস্থায়ী ভাবে প্রতিষ্ঠা করার জন্য খাস সরকারী রাজস্ব খাত হিসাবে অন্তরভুক্ত করা, যাতে করে অন্য কোন সরকার এই প্রতিষ্ঠানটিকে উঠিয়ে দিতে না পারে। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাধ্যমে এদেশকে উন্নত দেশ হিসাবে গড়ার অপার সম্ভবনা রয়েছে, এই প্রতিষ্ঠানের উদ্দেশ্য যদি সেবা মুলকই হয় তাহলে, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে রাজস্ব খাত হিসাবে জরুরি ভিক্তিতে অন্তর ভুক্ত করা উচিত। শুধু আইন পাশ করে ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করলে ও লাভ হবে না, যদি না এটি চিরস্থায়ী ভাবে প্রতিষ্ঠিত না হয়। এই ব্যাংকের মাধ্যমে সকল কুটির শিল্প, পল্ট্রি ফার্ম,ডেইরি ফার্ম,মাছ চাষীদের আওতায় এনে এদেরকে সহজ শর্তে ঋন দিয়ে ধীরে ধীরে তাদেরকে স্থায়ী ভাবে বেশি বেশি করে ফার্ম প্রতিষ্ঠা করতে সহযোগীতা করতে হবে, শুধু তাই নয় দরিদ্র মানুষ গুলো ফার্ম প্রতিষ্ঠার জন্য সকল ধরনের সহযোগিতা করে তাদের কে ও ফার্ম প্রতিষ্ঠায় উদ্ধবুদ্ধ করে তাদের জীবন মান উন্নয়ে অগ্রহনী ভুমিকা পালন করতে পারে। এই কাজ গুলো নিজস্বার্থ ভাবে করতে হবে যা সরকারী প্রতিষ্ঠান ছাড়া সম্ভব না। তাই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে খাস সরকারী রাজস্ব খাত হিসাবে অন্তরভুক্ত করা অতিব জরুরি হয়ে পড়েছে, তা না হলে ভবিষৎ এ এই ব্যাংকের আস্তিত্ব থাকবে না।

  55. Monojit says:

    ইকবাল ভাই
    আগে লোন পেমেন্ট দিন তারপর লোন ক্রিয়েট করুন। না হলে ঐ রকম কথা লেখা দেখা যাবে।

  56. Iqbal hoq says:

    একজন সদস্যের ঋণ সেকশন করতে গিয়ে ভূলক্রমে লাল তারকা চিহ্নিত একটি ঘরে মাস সিলেক্ট না করে সাবমিট করেছিলাম এর পর উক্ত সদস্যের পুনরায় মাস সিলেক্ট করে সাবমিট করি । কিন্তু তারপর হতে দেখায় This member already has an Unadjusted loan. So this member is not permitted for New loan. এ সমস্যার সমাধান কিভাবে করতে পারি এডমিন মহোদয় দয়া করে জানাবেন কি ? আমি এ বিষয়টি নিয়ে খুব চিন্তিত।

  57. GIAS UDDIN KHAN says:

    মানুষ আসলে সৃষ্টিগত কারণে সত্যের দিকে ধাবমান। সত্য কঠিন। আর সত্যকে ধারণ করা আরো কঠিন। কাছাকাছি থেকেও মানুষ একে অপরের মতের বিরুদ্ধে থাকতে পারে। আবার দূরে থেকেও মতের মিলের কারণে একে অপরের কাছাকাছি থাকতে পারে। ভালোবাসা অথবা মমত্ববোধ হার মেনে যায় আদর্শের কাছে। কারণ, বিবেক দংশন করে মানুষকে। বিবেকের দংশনে মানুষ সঠিক কাজ করতে বাধ্য হয়। যারা তা করেনা, তারাই হয়ে যায় অমানুষ। এদের সংখ্যাও কম নয়। কিন্তু, যারা আদর্শে বলিয়ান তাদেরকে মানুষ-অমানুষ সবাই সম্মান করে। যে কোন মানুষ নিজে কি? তা না ভেবে অন্যকে ভালো হতে হবে এই চিন্তাটিই সর্বদা করে। নিজে যত মন্দই হোক না কেন ভালোর প্রতি এক ধরনের টান অনুভব করে। আর এ কারণেই ভালোর কদর বেড়ে যায়। সে পেঁৗছে যায় অভিষ্ট লক্ষ্যে। সৃষ্টি হয় ভালো কিছুর। আর এ কারণেই সে পায় অমরত্ব। সৃষ্টিশীল কাজ বেঁচে রাখে তাকে। মানুষ পরবর্তিতে তার সেই আদর্শ লালন করে। সমৃদ্ধ হয় দেশ ও জাতি। আদর্শের কারণে দেশ ভেঙ্গে যায়। দূরের দেশগুলি এক কাতারে আবদ্ধ হয়। সংহতি আসে মানুষের মাঝে। ভালবাসা সৃষ্টি হয় একে অপরের মাঝে। সুন্দর হয় পৃথিবী। ধ্বংস আর লোভ দূরীভুত হয় মানুষের মাঝ থেকে। ত্যাগ করতে শেখায় মানুষকে। আপন হয় পর, পর হয় আপন। সেতুবন্ধন তৈরি হয় আলাদা শ্রেণি ও গোষ্ঠির মধ্যে। একে অপরকে শ্রদ্ধা করতে শেখে এবং শেখায়। সুখ এবং সমৃদ্ধি ধরা দেয় হাতের নাগালে। নীতিহীনরা হয়ে পড়ে অসহায়। সমাজ বদলে যায়। রাষ্ট্র সমৃদ্ধ হয়। মানুষ নিজেকে তুলে ধরে উর্দ্বে। সবার উপরে হয়ে ওঠে মহীয়ান, কীর্তিমান। মহীয়ান আর কীর্তিমানরা এক হয়ে যায় আদর্শের কারণে। যা অনুসরণ করে দেশ ও জাতি। এভাবেই রচিত হয় মানবসভ্যতা। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার সপ্নের সোনার বাংলা গড়তে একটি বাড়ি একটি খামার ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সকল কর্মকর্তা – কর্মচারী সত্যকে ধারন করে সেই কাজটিই করবে।

  58. sumon sarker says:

    DEAR ALL,
    VERY COLD AND FOG IS EVERY WHERE.ALL SUPERVISOR AND FIELD ASSISTANT BEWARE.

  59. Nushad Rana, CO/AA, Jaintapur, Sylhet. says:

    HAPPY NEW YEAR-2015
    Thanks all staff of
    Ektee Bari Ektee Khamar & Palli Sanchoy Bank.

  60. Iqbal hoq says:

    ভালবাসার আচড় তুলে সবসময় কাজ করতে চাই। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক কে নিজের হাতে রাঙ্গিয়ে বরণ করতে চাই । আমাদের নিজেদের সম্পদ নিজেরা গড়বো এর চেয়ে মূল্যবান কিছু হতে পারেনা।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      তোমার আশা ও আকাংখাকে সম্মান করি। এটা ধরে রাখবে।

  61. sarup says:

    Dear sir, amra Digree pass
    certificate diya job a dukclam
    amra oneke akon master’s pass.
    Sir empolyee information a ki
    amra master’s pass add korte
    perbo?

  62. sumon sarker says:

    HAPPY NEW YEAR.

  63. শুভ নববর্ষ। ২০১৫ খ্রিস্টাব্দ সাল সবার জীবনে মঙ্গল বয়ে আনুক।

  64. Narayan Dash says:

    শুভ নববর্ষ ২০১৫ খ্রিস্টাব্দ।

  65. কল্যাণ says:

    ☆☆Happy new year -2015.☆☆

    নতুন বছরে পুরানো ব্যর্থতা পিছনে ফেলে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প কে 100% সফলতা এনে দেওয়া হোক আমাদের অঙ্গীকার।

    কল্যাণ,
    মাঠ সহকারি,
    আলফাডাঙ্গা, ফরিদপুর

  66. monish says:

    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের জানাই ইংরেজী নববর্ষের শুভেচ্ছা।
    মনীষ কুমার রায়
    উপজেলা সমন্বয়কারী
    দাকোপ,খুলনা।

  67. babu says:

    Dear sir, amra Digree pass certificate diya job a dukclam amra oneke akon master’s pass. Sir empolyee information a ki amra master’s pass add korte perbo?

  68. shajalal says:

    পল্লী এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দারিদ্র্য কমিয়ে আনতে সরকার প্রতিষ্ঠা করেছে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক। ডিসেম্বরের মধ্যেই এ ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এরই অংশ হিসেবে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে গতকাল অবসরপ্রাপ্ত সচিব মিহির কান্তি মজুমদারকে নতুন এ ব্যাংকের চেয়ারম্যাননিয়োগ দেয়া হয়েছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্র জানায়, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন, ২০১৪ অনুযায়ী ২ সেপ্টেম্বর এক প্রজ্ঞাপনবলে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গঠন করা হয়েছে। ব্যাংকটি হবে মূলত ক্ষুদ্র সঞ্চয় ব্যাংক। গ্রামের দরিদ্র মানুষ যাতে সঞ্চয়ের মাধ্যমে বিনিয়োগে উদ্বুদ্ধ হয়, সে লক্ষ্যেই ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য সম্পর্কে সমবায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সঞ্চয়ে উদ্বুদ্ধকরণ, নারীর ক্ষমতায়ন, ঋণদানের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচনে অবদান রেখে চলেছে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প। এ কার্যক্রমকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপদানে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।জানা গেছে, ধীরে ধীরে ৪৮৫ উপজেলায় এ ব্যাংকের শাখা খোলা হবে। এ ব্যাংকের মাধ্যমে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে সরকারি অর্থ বরাদ্দ অব্যাহত থাকবে। সমিতির মাধ্যমে চলমান সঞ্চয় প্রকল্পে বর্তমানে ৭ হাজার ১৬২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছেন। প্রকল্পটির জনবল, অর্থ, স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পদ ও অফিস সরঞ্জাম এখন ব্যাংকের সম্পদ ও জনবল হিসেবে গণ্য হবে। গত দুই বছরে প্রায় ২০ হাজার সমিতি গঠন হয়েছে। এর সুবিধাভোগী মানুষের সংখ্যা ৪০ লাখ। এখন তারা সবাই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সদস্য হবেন।ড. মিহির কান্তি মজুমদার বণিক বার্তাকেবলেন, শিগগিরই ব্যাংকের কার্যক্রম চালু হবে। ব্যাংকটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সময় চেয়ে আবেদন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিলে সুবিধাজনক সময়ে এটির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হবে।তিনি আরো বলেন, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গ্রামীণ অর্থনীতিতে বড় ধরনের অবদান রাখবে। কারণ ব্যাংকটি মূলত সঞ্চয় ও বিনিয়োগনির্ভর। ক্ষুদ্রঋণের মতো এখানে প্রতি সপ্তাহে কিস্তি আদায় করা হবে না। এখানে মৌসুম অনুযায়ী কিস্তি আদায় করা হবে।পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন অনুযায়ী, ব্যাংকের অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি ও পরিশোধিত শেয়ার মূলধন হবে ২০০ কোটি টাকা, যার ৫১ শতাংশ সরকার ও ৪৯ শতাংশ সমিতি কর্তৃক পরিশোধ করা হবে।প্রথমে দেশের ৪৮৫ উপজেলায় শাখা খোলার মধ্য দিয়ে যাত্রা করবে ব্যাংকটি। মূলত ভিন্নভাবে গ্রামীণ মানুষের সঞ্চয় সংগ্রহ ও তাদের মধ্যে ঋণ বিতরণের জন্য গ্রামে শাখা খুলবে ব্যাংকটি। গ্রামীণ ব্যাংক যেমন বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণের বাইরে, তেমনি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকবে।৩১ মার্চ গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে একটি ব্যাংক গঠনের লক্ষ্যে সংসদে বিল উত্থাপন করা হয়। জুলাইয়ে এটি পাস হয়। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক বিল সংসদে উপস্থাপনের সময় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘সরকার গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছে। কাকতালীয়ভাবে আমার হাত দিয়েই ব্যাংকটিপ্রতিষ্ঠা হয়েছিল। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকবিলটিও আমার হাত দিয়েই এসেছে। এ বিষয়ে আমাদের অভিজ্ঞতা আছে। এর মধ্যেই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের আদলে অনানুষ্ঠানিকভাবে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সুবিধাভোগী জনগোষ্ঠী নিজেদের সমিতির মাধ্যমে একটি বিশাল সঞ্চয় গড়ে তুলেছে। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সুবিধাভোগী দরিদ্র জনগোষ্ঠীর হাতে ব্যাংকের ৪৯ শতাংশ শেয়ার বা মালিকানা দেয়া হয়েছে। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতাধীন সমবায় সমিতিগুলো এ ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার হবে। এর বাইরে অন্য কোনো সমবায় সমিতি এর শেয়ারহোল্ডার হতে চাইলে পরিচালনা পর্ষদের অনুমতি লাগবে।’

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      সবািইকে গ্রামে গ্রামে এটা জানিয়ে দিয়েছ নিশ্চই।

  69. আমরা সিলেটবাসী খুবই গর্বিত ও আনন্দিত।

    নবগঠিত পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে সিলেটে বিভাগের সিলেট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান জনাব আশফাক আহমেদ কে পরিচালক পদে নিয়োগ দিয়েছে সরকার। এর মধ্যে এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়েছে।
    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন, ২০১৪ এর ১১ ধারার (১) উপ-ধারার (ঙ) এবং (চ)-এর বিধান অনুযায়ী এ নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। গত ২ জুলাই জাতীয় সংসদে অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল ‘পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন-২০১৪’ জাতীয় সংসদে উত্থাপন করলে তা পাস হয়। এই আইনের বিধান অনুযায়ী এ ব্যাংকের ৪৯ শতাংশ মালিকানা থাকবে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের সুবিধাভোগী সমিতিগুলোর হাতে এবং অবশিষ্ট ৫১ শতাংশ সরকারের হাতে। ব্যাংকের মূলধন হবে এক হাজার কোটি টাকা। ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্পের আওতাধীন সমবায় সমিতিগুলো এ ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার হবে এবং এর বাইরে অন্য কোনো সমবায় সমিতি এর শেয়ারহোল্ডার হতে চাইলে পরিচালনা পর্ষদের অনুমতি লাগবে। ব্যাংকটির পরিচালনা পর্ষদের সদস্য সংখ্যা হবে ১৫। তাদের ৮ জন সরকার মনোনীত এবং বাকি ৭ জন সমিতিগুলো থেকে আসবেন। সদস্যদের মধ্যে থেকেই একজনকে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসেবে নিয়োগ দেবে পর্ষদ। তবে এ জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকের অনুমোদন নিতে হবে। এই ব্যাংকের অনুমোদিত এক হাজার কোটি টাকা মূলধন প্রতিটি একশ’ টাকার ১০ কোটি সাধারণ শেয়ারে সমভাবে বিভক্ত হবে। তবে সরকারের অনুমোদনক্রমে ব্যাংক কর্তৃপক্ষ সময়ে সময়ে এ মূলধন বাড়াতে পারবে। খুব শিগগিরই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক পূর্ণাঙ্গভাবে আত্মপ্রকাশ করবে এবং ধীরে ধীরে দেশের প্রতিটি উপজেলায় এর শাখা হবে। পরবর্তীতে ধীরে ধীরে তা ইউনিয়ন এবং গ্রাম পর্যায়ে বিস্তৃত করা হবে বলে, ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্রে জানা গেছে।
    আমরা একটি বাড়ী একটি খামার প্রকল্প, উপজেলা সমন্বয়কারী, শ্রীমঙ্গল উপজেলা, ও মৌলভীবাজার জেলার সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা/কর্মচারীদের পক্ষ থেকে অভিন্দন রইল। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালনা পর্ষদে সিলেটে বিভাগের সিলেট সদর উপজেলার চেয়ারম্যান জনাব আশফাক আহমেদ কে পরিচালক পদে নিয়োগ পেয়েছেন বলে আমরা খুবই গর্বিত ও আনন্দিত।

  70. hamid says:

    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের ও পল্লী সন্চয় বাংকের-
    কাজ গতিশীল ও সরকারের উদ্দেশ্য পূরনের জন্য এবং টেকসই দারিদ্র বিমোচনের জন্য মাঠ পর্যায়ে জোর মনিটরিং দরকার।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      অন্যের দ্বারা মনিটরিং কেন? তোমার নিজের উপর বিশ্বাস নেই? ৭ হাজার কর্চারী দেশপেম ও নিজ চেতনা নিয়ে কাজ করলে মনিটরিং লাগে কি? লিখে জানাবে। মনিটরিং প্রয়োজন হবে না বলে আমার বিশ্বাস। তোমরা সবাই নিজেরটা নিজে মনিটর করবে। আমার আশা অপূর্ণ থাকবে না।

  71. Sajid-UCO says:

    I Love Family Of EBEK & Polli Sanchoy Bank……………

  72. কল্যাণ, says:

    আজ বিজয় দিবসে আমাদের একটাই চাওয়া হোক- একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প ও পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক -এর মাধ্যমে এদেশ দারিদ্র্য মুক্ত হোক।
    ——————
    মাঠ সহকারি,
    আলফাডাঙ্গা, ফরিদপুর ।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      ধন্যবাদ। তোমার চাওয়া পুরণ হোক। সকলকে চাইতে বল।

  73. কল্যাণ says:

    16ই ডিসেম্বর 1971, 30 লক্ষ জীবনের বিনিময়ে অর্জিত হয়েছে বাংলাদেশের স্বাধীনতা । বীর বাঙালি 9 মাসে এদেশ থেকে পাক হানাদারদের বিতাড়িত করে স্বাধীনতা দিয়েছে কিন্তু দীর্ঘ 44 বছরে এদেশকে দারিদ্রের হাত থেকে মুক্তি দিতে পারেনি। ফলে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা শুধু স্বপ্নই রয়ে গেছে। কিন্তু এ স্বপ্নকে বাস্তবায়নে দেশকে দারিদ্র্য মুক্ত করতে বঙ্গবন্ধুর কন্যা, গনপ্রজাতন্তী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ব্যাপক কর্মসূচি হাতে নিয়েছেন। যার ফল আমরা দেশবাসী ইতিমধ্যে পেতে শুরু করেছি। আর সরকার যেটিকে দারিদ্র্য বিমোচনের হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে সেটি হলো একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প ।আর এ প্রকল্পের পরিবর্তিত স্থায়ী রূপ পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক এদেশের দারিদ্র্যকে সমূলে উপড়ে ফেলে এদেশকে একটি উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত হওয়ার পথ দেখাবে।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      আমি মনেপ্রানে তোমারসাথে একমত। এ স্বপ্নপূরণে সকলকে প্রতিশ্রুতি নিতে হবে। লেখ সকলকে।

  74. নাইম খান says:

    ধন্যবাদ, প্রোগ্রামার স্যারকে আমার উল্লেখিত সমস্যাগুলো গুরুত্ব সহকারে দ্রুততার সহিত সমাধান করে দেয়ার জন্য।

    নাইম খান
    উপজেলা সমন্বয়কারী
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প
    হিজলা, বরিশাল
    মোবাইল-01938879252

  75. admin says:

    রিপোর্ট রিটার্ন এর পাসওয়ার্ড ইউসিওকে পাঠানো হয়েছে

  76. কল্যাণ says:

    পল্লী এলাকার মানুষের কর্মসংস্থান সৃষ্টি ও দারিদ্র্য কমিয়ে আনতে সরকার প্রতিষ্ঠা করেছে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক। ডিসেম্বরের মধ্যেই এ ব্যাংকের কার্যক্রম শুরু হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে। এরই অংশ হিসেবে অর্থমন্ত্রণালয়ের ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ থেকে গতকাল অবসরপ্রাপ্ত সচিব মিহির কান্তি মজুমদারকে নতুন এ ব্যাংকের চেয়ারম্যাননিয়োগ দেয়া হয়েছে। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ সূত্র জানায়, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন, ২০১৪ অনুযায়ী ২ সেপ্টেম্বর এক প্রজ্ঞাপনবলে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গঠন করা হয়েছে। ব্যাংকটি হবে মূলত ক্ষুদ্র সঞ্চয় ব্যাংক। গ্রামের দরিদ্র মানুষ যাতে সঞ্চয়ের মাধ্যমে বিনিয়োগে উদ্বুদ্ধ হয়, সে লক্ষ্যেই ব্যাংকটি প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্য সম্পর্কে সমবায় মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বলা হয়, গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র ও সুবিধাবঞ্চিত মানুষকে সঞ্চয়ে উদ্বুদ্ধকরণ, নারীর ক্ষমতায়ন, ঋণদানের মাধ্যমে দারিদ্র্য বিমোচনে অবদান রেখে চলেছে ‘একটি বাড়ি একটি খামার’ প্রকল্প। এ কার্যক্রমকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপদানে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।জানা গেছে, ধীরে ধীরে ৪৮৫ উপজেলায় এ ব্যাংকের শাখা খোলা হবে। এ ব্যাংকের মাধ্যমে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে সরকারি অর্থ বরাদ্দ অব্যাহত থাকবে। সমিতির মাধ্যমে চলমান সঞ্চয় প্রকল্পে বর্তমানে ৭ হাজার ১৬২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারী কাজ করছেন। প্রকল্পটির জনবল, অর্থ, স্থাবর-অস্থাবর সব সম্পদ ও অফিস সরঞ্জাম এখন ব্যাংকের সম্পদ ও জনবল হিসেবে গণ্য হবে। গত দুই বছরে প্রায় ২০ হাজার সমিতি গঠন হয়েছে। এর সুবিধাভোগী মানুষের সংখ্যা ৪০ লাখ। এখন তারা সবাই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের সদস্য হবেন।ড. মিহির কান্তি মজুমদার বণিক বার্তাকেবলেন, শিগগিরই ব্যাংকের কার্যক্রম চালু হবে। ব্যাংকটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সময় চেয়ে আবেদন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী সম্মতি দিলে সুবিধাজনক সময়ে এটির আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করা হবে।তিনি আরো বলেন, পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক গ্রামীণ অর্থনীতিতে বড় ধরনের অবদান রাখবে। কারণ ব্যাংকটি মূলত সঞ্চয় ও বিনিয়োগনির্ভর। ক্ষুদ্রঋণের মতো এখানে প্রতি সপ্তাহে কিস্তি আদায় করা হবে না। এখানে মৌসুম অনুযায়ী কিস্তি আদায় করা হবে।পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক আইন অনুযায়ী, ব্যাংকের অনুমোদিত মূলধন ১ হাজার কোটি ও পরিশোধিত শেয়ার মূলধন হবে ২০০ কোটি টাকা, যার ৫১ শতাংশ সরকার ও ৪৯ শতাংশ সমিতি কর্তৃক পরিশোধ করা হবে।প্রথমে দেশের ৪৮৫ উপজেলায় শাখা খোলার মধ্য দিয়ে যাত্রা করবে ব্যাংকটি। মূলত ভিন্নভাবে গ্রামীণ মানুষের সঞ্চয় সংগ্রহ ও তাদের মধ্যে ঋণ বিতরণের জন্য গ্রামে শাখা খুলবে ব্যাংকটি। গ্রামীণ ব্যাংক যেমন বাংলাদেশ ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণের বাইরে, তেমনি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকও কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নিয়ন্ত্রণের বাইরে থাকবে।৩১ মার্চ গ্রামীণ ব্যাংকের আদলে একটি ব্যাংক গঠনের লক্ষ্যে সংসদে বিল উত্থাপন করা হয়। জুলাইয়ে এটি পাস হয়। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক বিল সংসদে উপস্থাপনের সময় অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত বলেন, ‘সরকার গ্রামীণ ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করেছে। কাকতালীয়ভাবে আমার হাত দিয়েই ব্যাংকটিপ্রতিষ্ঠা হয়েছিল। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকবিলটিও আমার হাত দিয়েই এসেছে। এ বিষয়ে আমাদের অভিজ্ঞতা আছে। এর মধ্যেই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের আদলে অনানুষ্ঠানিকভাবে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সুবিধাভোগী জনগোষ্ঠী নিজেদের সমিতির মাধ্যমে একটি বিশাল সঞ্চয় গড়ে তুলেছে। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সুবিধাভোগী দরিদ্র জনগোষ্ঠীর হাতে ব্যাংকের ৪৯ শতাংশ শেয়ার বা মালিকানা দেয়া হয়েছে। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের আওতাধীন সমবায় সমিতিগুলো এ ব্যাংকের শেয়ারহোল্ডার হবে। এর বাইরে অন্য কোনো সমবায় সমিতি এর শেয়ারহোল্ডার হতে চাইলে পরিচালনা পর্ষদের অনুমতি লাগবে।’

    • aftab says:

      DEAR ALL,
      “HAPPY NEW YEAR-2015″,
      THANKS TO EBEK & RSB ALL STAFF.

      AFTAB-CO
      ISLAMPUR, JAMALPUR
      CELL: 01712795256.

      • aftab says:

        HAPPY NEW YEAR 2015

        I wish in 2015
        God gives You…
        12 Month of Happiness,
        52 Weeks of Fun,
        365 Days Success,
        8760 Hours Good Health,
        52600 Minutes Good Luck,
        3153600 Seconds of Joy…
        And that’s all!

        aftab

    • aftab says:

      Dear all,
      HAPPY NEW YEAR 2015@
      All of ebek staff & officer.

      “Notun bochor asuk niye notun notun asha,
      Prithibite choriye dik sudhui valobasa.
      Hanahani, vedaved sob kichu vuli,
      Aso sobe mile mise sot pothe choli.
      Sobaike New Year er Suveccha.
      Purono joto Hotasha, Dukkho, Obosad,
      Noton bochor oguloke karok Dhulissat,
      Sukh, Anonde muche jak sokol Jatona,
      New Year a sobar jonne Shuvo Kamona.
      Happy New Year 2015.

      Regards,
      aftab_co_islampur

  77. Md. Mahmudul Hasan says:

    ত্রিশাল উপজেলার ”একটি বাড়ি একটি খামার” প্রকল্পের উপজেলা সমন্বয়কারীর পিতা গত-28-11-2014 তারিখ ইন্তেকাল করেছেন, সকলেই তাহার পিতার জন্য দোয়া করবেন|

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      আমি ব্যক্তিগতভাবে ও একটি বাড়ি একটি খামার পরিবারের পক্ষ থেকে সমন্বয়কারীর পিতার বিদেহী আত্মার জন্য শান্তি কামনা করি।পিডি

  78. mehedy hassan says:

    thanks all

  79. মোঃ লিকন মিয়া
    সিও,এ.এ, অষ্টগ্রাম, কিশোরগঞ্জ।
    ০১৭১০-৬৭৫২৯১ *******

    অনারেবল পি.ডি. মহোদয় স্যারকে নমস্কার এবং সারা বাংলাদেশের কম্পিউটার অপারেটরগনের পক্ষ থেকে পি.ডি. মহোদয় স্যারকে অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। তিনি এই ব্লগে আইটি উদ্ভাবনী বিষয় নিয়ে লিখার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন, সেজন্য স্যারকে আবারো ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

    আজকের বিষয় : কম্পিউটার উইন্ডোস আপডেট ও মজিলা ফায়াফক্সের আপডেট রাখা, তারপর ইন্টারনেটের গতিটা অনেকটা আশাতীত গতিশীল ফলাফল পাওয়া যায়।

    ১ম ধাপ (Windows Up to Date) করা: ইউন্ডোস আপডেট রাখতে হলে, আপনার Internet Connect দিন।তারপর Start> Control Panel>Windows Update. এখন Change Settings থেকে Important Updates> Install Update Automatically (Recommended) Select করে OK দিন। তারপর Back এ আসুন, এখন Check For Updates Click করুন। দেখুন আপনার Windows এর সিস্টেম ফাইল থেকে Error হয়ে যাওয়া অনেক সিস্টেম ফাইল ডাউনলোড হচ্ছে। যতক্ষণ লাগে অপেক্ষা করুন। ডাউনলোড শেষ হয়ে গেলে, Install Updates তাতে ক্লিক করুন। দেখুন আপনার উইন্ডোস আপডেট ফাইলগুলি Install হয়ে যাচ্ছে। Install হয়ে গেলে Windows is Up to date লিখাটি আসবে। That’s OK. Computer Restart দিন।প্রতিদিন এভাবে Update দিতে থাকুন, ভাল রেজাল্ট পাবেন।

    ২য় ধাপ (Mozilla Firefox Update) করা: Mozilla Firefox আপডেট রাখতে হলে, আপনার Internet Connect দিন।উপরে বামে Firefox Click করুন> Help Click করুন> About Firefox Click করুন, দেখুন নেট থেকে স্বয়ংক্রিয়ভাবে Firefox আপডেট হচ্ছে, যতক্ষণ লাগে অপেক্ষা করুন। অবশেষে Finish বা OK চাপুন। Firefox থেকে বের হয়ে আসুন। অবশেষে Computer Restart দিন। দেখুন আগের চেয়ে নেট অনেকটা গতিশীল আচরণ করছে।
    ভাল ফলাফল পেলে জানাবেন প্লিজ। সবার সু-স্বাস্থ্য কামনা ও মাননীয় পিডি মহোদয়ের দীর্ঘায়ু কামনা করছি।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      অপূর্ব। তুমি আরও লেখ। অন্যদের লিখতে বল।

  80. Mazidul Islam says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করাই
    মাননীয় প্রধান মন্ত্রীকে ও গনপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের অতিরিক্ত সচিব জনাব ডাঃ প্রশান্ত কুমার রায়কে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। বিশেষ করে আমরা প্রকল্প পরিচালককে গভীর কৃতঙ্গতা ভরে জানাই শ্রদ্ধা ও অভিনন্দন কারন তিনি টেকনাফ থেকে তেতুলিয়া,রুপসা থেকে পাথুরিয়া দিন রাত কঠর পরিশ্রম করে প্রকল্পকে দাঁড় করতে সখম হয়েছে। যা বর্তমানে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক নামে আত্তপ্রকাশ করেছে, মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর অবশ্যই উচিত এমন যোগ্যতা সম্পর্ন মানুষকে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের পরিচালক হিসাবে নিয়োগ দেওয়া,তাহলে আমরা ধন্য হবো। সেই সঙ্গে প্রকল্প শুরু থেকে এখন পর্যন্ত সকল কর্মচারি /কর্মকর্তারা সততা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করে যাচ্ছে,তাদেরকে ও অবশ্যই যোগ্যতা সম্পর্ন পদবী /পদমর্যাদা দেওয়া উচিত। বিশেষ করে ফিল্ড পর্যায়ে কাজ করে মাঠ সহকারীরা তাদেরকে কঠর পরিশ্রম করতে হয়, একাধারে নিয়োমিত উঠান বৈঠক করা, উঠান বৈঠকে অনুপস্তিত সদস্যদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোজ খবর নেওয়া, ঋন ফরম করা,সঞ্চয় আদায় করা, ঋনের কিস্তি আদায় করা, কোন সদস্য ঋন পাওয়ার যোগ্য তাকে প্রত্যয়ন করা, অফিসে এসে সঞ্চয় ও ঋন আদায় পোস্টিং দেওয়া,প্রতিমাসে MCS তৈরি করে জমা দেওয়া, আবার সেই MCS হেড অফিস কর্তিক প্রেরিত ফরমেট পুরুন করে পাঠায়ে দিতে হয়, এত পরিশ্রম বিনিময়ে যে বেতন ভাতা দেওয়া হয় তা খুবি সামান্য যা দিয়ে একটা পরিবার চালানো কখনই সম্ভব না, অন্যদিকে গ্রামীন ব্যাংক প্রতিটি ইউনিয়নে ৭/৮ মাঠসহকারীর মাধ্যমে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে, সেখানে ১টা ইউনিয়নে এক জন মাঠসহকারীকে কঠর পরিশ্রম করতে হয়, যা উপর মহলরা বুঝতে পারে না, আবার পিডি মহাদয় মাঠসহকারীদের ল্যাপটপ কিনার নোটিশ করেছে, কিন্তুু দুর্রভাগ্য জনক হলেও সত্য যে, যেখানে মাঠসহকারীরা পরিবারের খরচই চালাতে পরছে না, ল্যাপটপ কিনবে কোথা থেকে, যে প্রতিষ্ঠানেরর মাধমে ভবিশৎ এ দেশ উন্নত ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিনত হতে যাচ্ছে, সেই প্রতিষ্ঠানে মাঠসহকারীদেরকে সরকারী ভাবে ল্যাপটপ দেওয়া জরুরি, কেননা কমিউনিটি হেলথ প্রমোটার যদি ল্যাপটপ পায়, তাহলে তাদের আগে আমাদের পাওয়া উচিত ছিল। সর্বশেষ যারা ফিল্ড পর্যায়ে কাজ করছে তাদের প্রতি যথাযত কর্তিক পখ্খের দৃষ্টি আর্কষন করছি, তাদের বেতন ভাতা বাড়িয়ে দেওয়া হয়।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      গরীব দেশে াার ৫ জন বেকারের চেয়ে অনেক ভাল আছ মনে করবে। নিজের প্রয়োজন গরীবের সেবার জন্য ল্যাপটপ কিনে কাজ করবে। নিজের মধ্যে এ চেতনা লালন করবে।

  81. Iqbal hoq says:

    জীবনের প্রশ্বাস যেমন একটু অক্যিজেন,তেমনি আমাদের প্রশ্বাস মাননীয় ব্যাবস্থাপনা পরিচালক মহোদয়্, আমাদের সকলের দায়িত্ব একা কাধে তুলে নিয়ে আমাদের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে আমাদের জীবনে একটু আশার আলো সঞ্চার করার জন্য একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা কর্মচারীদের পক্ষ হতে জানাই আন্তরিক অভিনন্দন। মহোদয় আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে আপনার এ প্রকল্প বাস্তবায়নে যতই কষ্ট হোক আমাদের, আমরা সবাই মিলে ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আপনার প্রকল্প বাস্তবায়ন করে প্রত্যেকটি গ্রামের দুঃখি মানুষের মুখে হাসি ফুটানোর চেষ্টা করে যাবো। গরীব মানুষের মুখের হাসি মানেই তো মহোদয়ের মুখের হাসি। আর এ হাসিটা সবসময় ধরে রাখতে চাই।

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      তোমার কাছে এ দেশের দরিদ্র মানেুষের পক্ষে কৃতঞ্জতা ঞ্জাপন করছি। তোমার এ প্রতিশ্রুতি অন্যদের মাঝে জাগরিত হোক এ প্রার্থনা করি। তোমরাই পারবে। পরম করুনাময় তোমাদের সহায় হোন।

  82. প্রদীপ হাওলাদার says:

    শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপনঃ

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের চেয়ারম্যান মহোদয়ের আগমন উপলক্ষে অফিসিয়াল কাজে জেলা অফিসে যাওয়ার পথে গত 09/10/2014 ইং তারিখ এ্যাকসিডেন্ট হয়ে হাতের হাড় ভাঙ্গাসহ ভীষনভাবে অসুস্থ হওয়ার পরে প্রধান কার্যালয়ের শ্রদ্ধাভাজন প্রোগ্রামার, জনাব এ.এম.ই তানহার স্যারের সহযোিগতায় ঢাকার বিশিষ্ট ডাক্তারের চিকিৎসা নিয়ে এখন আমি অনেক সুস্থ এবং অফিসের কাজও করতে পারছি। তাই স্যারকে গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতা জানাই।

    প্রদীপ কুমার হাওলাদার
    উপজেলা সমন্বয়কারী
    গলাচিপা, পটুয়াখালী।
    01938879268,
    01713797780.

    • ড. প্রশান্ত কুমার রায়, পিডি says:

      অন্যের বিপদে এগিয়ে আসবে এ শিক্ষাটা সকলে মেনে চলবে।

  83. Iqbal hoq says:

    নতুন সমিতিতে ঋণ দিতে গিয়ে দেখলাম এক ইউনিয়নের একটি সমিতি অন্য ইউনিয়নে চলে গেছে। উক্ত সমস্যার সমাধান কিভাবে করতে পারি ।

  84. আমরা যারা উপজেলা সমন্বয়কারীর দ্বায়িত্ব পালন করছি, তাদেরকে প্রমোশন দিয়ে উপজেলা সমন্বয়কারীর পদে পদায়ন করার জন্য বিষেশভাবে অনুরুধ জানাচ্ছি।

  85. একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে তিন বছর হলো চাকরী করছি। উপজেলা বড় হবার কারণে প্রতিদিন বিভিন্ন সমিতি পরিদর্শনে যেতে হয়। বিশেষ করে সমিতি গঠনের সময় তো সারাদিন ফিল্ড করতে হয়েছে। সমিতি পরিদর্শনের জন্য ফিল্ড সুপারভাইজারদেরকে যে বাই সাইকেল দেয়া হয়েছে তা দিয়ে এত দূরত্বের জায়গায় পরিদর্শন করা সম্ভব হয় না। তাই নিজের মোটর সাইকেল দিয়ে সমিতি পরিদর্শন করতে গিয়ে অনেক পয়সা খরচ করতে হয়। এখন ইউনিয়নের সংখ্যা বেশি হবার কারনে প্রতিদিনই দূর দূরান্তে পরিদর্শনে যেতে হয়। সে ক্ষেত্রে পরিদর্শন বাবদ অনেক টাকা ব্যয় হচ্ছে। উপজেলা সমন্বয়কারীদের যে মোটর সাইকেল দেয়া হয়েছে তা ব্যবহারের কখা বললে ো আমরা তা এখনো পর্যন্ত নিজেদের মত করে পাচ্ছি না। তাই আমার মনে হয় আমাদের যদি মাসিক নির্দিষ্ট হারে টি এ বিল প্রদান করা হত তাহলে নিজের বেতন হতে এত টাকা অফিসের কাজে লাগাতে হত না।

  86. মাননীয় প্রকল্প পরিচালক মহোদয়,
    এবাএখা প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীদের কে যত দ্রুত সম্ভব জরুরী ভিত্তিতে আরো উন্নত প্রযু্ক্তি নির্ভরযোগ্য প্রশিক্ষণ গ্রহন এবং প্রকল্পের সংশ্লিষ্ট স্বার্থে আরো প্রয়োজনীয় হাতকলমে প্রশিক্ষণ গ্রহন করত: সকল কর্মকর্তা/কর্মচারীদেরকে স্বার্থ সংরক্ষনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের দৃষ্টি আকর্ষন করছি। ব্যাংকের এশিয়া এজেন্ট হিসাবে আমাদেরকে কমপক্ষে পনের দিনের অনলাইন ব্যাংকিং প্রশিক্ষণ প্রয়োজন। এই বিশেষ প্রশিক্ষন গ্রহন করলে আমরা আরো দ্রুত প্রকল্পের সম্যসা নিরুপন করতে পারবো।

  87. নাসির উদ্দিন says:

    আজ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে লিখতে বসলাম । কারণ, আমাদের সম্মানিত মহোদয়গণ যে দেশকে ক্ষুধা, দারিদ্র মুক্ত দেশ হিসেবে বিশ্বের কাছে মডেল হিসেবে উপহার দেয়ার প্রতিশ্রুতি আমাদের দিয়েছেন ,আর তার বাস্থবায়নের লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি, তার কিছুটা ব্যতিক্রম তুলে ধরছি। আমরা মাঠ সহকারী হিসেবে ১৪জন নরসিংদী সদর উপজেলায় কাজ করতেছি। দীর্ঘ দিন ধরে আমাদের অক্লান্ত পরিশ্রম এবং আমাদের মহোদয়গনের সুদুর প্রসারী দিক নির্দেশনায় আমরা প্রতিটি ওয়ার্ডে সমিতি গঠন করতে সক্ষম হয়েছি। কিন্তু বর্তমানে আমাদের সকল সমিতির মেয়াদের প্রয়োজনীয় সঞ্চয় লক্ষ্যমাত্রা পূরন হওয়া সত্বে ও আমরা সদস্যদের মাঝে আমাদের ঋনের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে পারছি না। আমরা আমাদের উদ্ধতন কর্মকর্তাদের নিকট থেকে যে সংবাদ পাই তাই মাঠে সদস্যদের মাঝে প্রচার করি। আমরা তাদের নিকট এর জন্য বর্তমানে যেতে পারছি না। কারন , আমরা তাদের ঋনের ব্যাপারে যা বুঝিয়েছি,তা সময়মত তাদের বুঝিয়ে দিতে পারছিনা ।এমতাবস্থায় , আমরা তাদের নিকট আমাদের নিজেদের ভাবমুর্তি হারাচ্ছি।বর্তমানে এনজিও গুলো মাত্র ২০ টাকা সঞ্চয়ের বিপরীতে লক্ষ লক্ষ টাকা সদস্যদের দোড় গোড়ায় পৌছে দিচ্ছে।কিন্তু আমরা তাদের চেয়েও আলাদা এবং আরো শক্তিশালী নেটওয়ার্ক হওয়া সত্বেও আমাদের স্বজনদের নিকট আজও সময়মত ঋন পৌছাতে পারছি না।এর কতগুলো সমস্যা আমরা তুলে ধরতে চাই।
    ১। আমাদের সঠিক দিক নির্দেশনা প্রদানের অভাব। যেখানে আমাদের সঠিক তথ্য প্রদানের জন্য দক্ষ সমন্বয়কারীর প্রয়োজন। যার বলিষ্ট নেতৃত্বে আমরা সদস্যদের নিকট আমাদের দেয়া কথার গ্রহন যোগ্যতা ফিরে পাবো।

    ২। আমাদের সমিতিগুলো পরিদর্শনের জন্য প্রয়োজনীয় টিম গঠন করা। যেখানে আমাদের নিকট সদস্যদের ভাবমুর্তি সুন্দর হয়। এর জন্য আমাদের পাশাপাশি যেন আমাদের উপজেলার উদ্ধর্তন কর্মকর্তারা ও আমাদের সকল সমিতিগুলো পরিদর্শন করে সকল বিষয়ে খোজখবর রাখেন।
    ৩। আমরা ফিল্ডে কাজ করি। কাজ করতে গিয়ে আমাদের নতুন নতুন অভিঞ্জতার সঙ্গে পরিচয় হয়। সেখানে আমরা অনেক সময় কোন সমস্যার সম্মুখীন হই।এ সমস্যা গুলো সমাধানে আমাদের উদ্ধর্তন কর্মকর্তার আশ্রয় একান্ত কাম্য।
    ৪। আমাদের সবচেয়ে বড় সমস্যা হলো আমাদের নিজেদের মধ্যে কাজের শৃংখলা ও সময়ানুবর্তীতার অভাব। এটা এজন্য বললাম যে, আমরা অনেক সমিতির ঋন প্রদানের জন্য বিড়ম্বনার স্বীকার হই। এর প্রধান কারন আমাদের উ্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ তাদের কাজগুলো যখাসময়ে করেননি।যেমন -আমরা একটি সমিতির ঋন ফরম তৈরী করার পর এর যাচাইবাচাই করে আমাদের উদ্ধতন কর্মকর্তাদের নিকট ঘুরতে হয়।তাতেও আমাদের কাজটি সঠিক সময়ে আমরা করে উঠতে পারিনা। কারন , তারা আমাদের কাজগুলো যাচাইবাছাই করতে বিলম্ব করেন। তার জন্য আমরা সমিতিতে সঠিক সময়ে ঋনের সেবা পৌছে দিতে পারি না।
    ৫। আমরা বর্তমানে সমিতির সকল সদস্যকে তাদের প্রাপ্য ঋণ পৌছে দিতে পারছি না বলে আজ আমাদের ব্যর্থতার পরিচয় পাচ্ছি। এজন্য উদ্ধতন মহোদয়গনের নিকট আমাদের দাবি আমাদের সকল সমিতির ঋনের দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়ার কিছুটা হলেও যেন লাঘব করেন। যেখানে আমাদের স্বাক্ষর এর জন্য ঘুরতে না হয়।

    অবশেষে সকলকে ধন্যবাদ জানিয়ে আবারও বলতে চাই আমাদের ব্যাংক যে বিশ্বের বুকে একটি আধুনিক পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক হিসেবে দরিদ্র মানুষের ভাগ্যকে জয় করতে পারে, যেখানে একটি ক্ষুধামুক্ত সাবলম্বী সমাজ ব্যবস্থা বিরাজ করবে ,সকলে আমরা সকলের তরে,প্রত্যেকে পরের তরে।
    শুভেচ্ছা
    ভুল হয়ে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখবেন।

    • admin says:

      মতামতটি পড়ে ভাল লাগল। মতামতটিতে সমস্যা, অভিঞ্জতা ইত্যাদি বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। প্রতিটি লিখা আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। মতামত প্রদানের জন্য ধন্যবাদ।

      এ.এম.ই.তানহার
      প্রোগ্রামার
      01938879010
      01911985299

  88. Mazidul Islam says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করাই, গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও অর্থনৈতিক স্বাধীনতার অগ্রপতিক দেশদরদী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন ও দারিদ্র বিমোচনের জন্য বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্ববৃহৎ প্রকল্প, একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পকে স্থায়ীভাবে রুপ দিতে প্রতিষ্ঠা করেছে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক, আমরা বিশ্বাস করি পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাধ্যমে এদেশের মানুষকে অর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন ও দারিদ্র বিমোচন করা অবশ্যই সম্ভব। তবে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প শুরু থেকে এ পর্যন্ত সকল নিয়োগ প্রাপ্ত কর্মকর্তা/কর্মচারীরা সততা ও নিষ্ঠার সহিত দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে এই প্রকল্পকে স্থায়ী রুপ দিতে সৈনিকের মত কাজ করেছে তাদেরকে অবশ্যই সর্বচ্চোধিকার যোগ্যতা সর্ম্পন পদমর্যাদা ও পদবী দেওয়া উচিত। এই প্রকল্পের জন্য যিনি নিজের সুখ শান্তি ত্যাগ করে দিন রাত সমান করে অক্লান্ত কঠর পরিশ্রম করে এই প্রকল্পকে স্থায়ী রুপ পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠায় অগ্রহনি ভুমিকা পালন করেছে, তাকে আবশ্যই যোগ্যতা সর্ম্পন পদমর্যাদা দেওয়া উচিত।

  89. zahid hasan says:

    জাহিদ হাসান
    মাঠ সহকারী, বাসাইল, টাঙ্গাইল।
    একটি বাড়ি একটি খামার কে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ। একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের মাধ্যমে গ্রামের হত দরিদ্র মানুষের আয়ের মোক্ষম হাতিয়ার হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সরকার প্রকল্পকে সরকারি বিশেষায়িত ব্যাংকে বাস্তবায়ন করছে। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাধ্যমে গ্রামের মানুষের সঞ্চয়কে স্হায়ী তহবিলে পরিণত করবে।বাংলাদেশকে দারিদ্রমুক্ত করতে বর্তমান সরকার পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্টা করছে।সরকারের এই মহতি উদ্দ্যোগের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ।প্রকল্প মহোদয়কে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাই এই জন্যে যে তিনি তার অকাল্ত পরিশ্রমের বিনিময়ে একটি বাড়ি একটি খামার কে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকে রুপান্তর করেছ্নে।

  90. zahid hasan says:

    zahid hasan
    Field Assistant
    Basail, Tangail.
    Thank you prime minister.

  91. Md. Emdadul Hoqe says:

    আমরা যদি ইউনিয়ন পরিষদে সাপ্তাহিক মিটিং অথবা মাসিক সমন্বয় মিটিং এ একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সংশ্লিষ্ট ইউনিয়নের একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সভাপতি এবং ম্যানেজারদের কে নিয়ে চেয়ারম্যান এর সাথে সকল সমস্যা নিয়ে আলোচনা করি তাহলে আমাদের সমস্যা গুলি অনেক টা সমাধান হবে। যা আমরা করে থাকি।

    • মোঃ লিটন হোসেন says:

      তোমার লেখাটি আমার দৃষ্টিতে সঠিক। কারন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও সদস্যবৃন্দ যদি আমাদের এ প্রকল্পের উদ্দেশ্য বুঝতে পারত তাহলে আমাদের কাজ করতে অনেক সুবিধা হত।

  92. প্রদীপ হাওলাদার says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের মাননীয় চেয়ারম্যান মেহোদয়ের অাগমন উপলক্ষে অফিসিয়াল কােজ পটুয়াখালী জেলা অফিসে আসার পথে এ্যাকসিডেন্ট করে হাতের হাড় ভাঙ্গাসহ গুরুতর আহত অবস্থায় এখন বিছানায়। সকলের দোয়া কামনা করছি।

    প্রদীপ হাওলাদার
    উপজেলা সম্বয়কারী
    গলাচিপা, পটুয়াখালী।

  93. নাসির উদ্দিন says:

    আমি নাসির উদ্দিন। মাঠ সহকারী হিসেবে নরসিংদী জেলার নরসিংদী সদর উপজেলায় কাঠালিয়া ইউনিয়নে কাজ করিতেছি। দীর্ঘ ৯ মাস ধরে কাজ করতে গিয়ে আমার কিছু অভিঞ্জতা শেয়ার করলাম। আমাদের উপজেলায় মোট ১৪টি ইউনিয়ন আছে । আমি যখন ১৫ জানুয়ারী2014 চাকরিতে যোগদান করি ,তখন আমরা মাত্র ৫জন ছিলাম। ফলে আমাদের ৫জনকে ভাগ করে দেয়া হলো ২টি করে মোট ১০ টি ইউনিয়ন।তাই আমাদেরকে ২টি ইউনিয়নেই কাজ করতে হতো।কাজের চাপ ছিল প্রচুর। তা সত্ত্বেও আমরা আমাদের প্রবল চেষ্টা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দারিদ্রমুক্ত সোনার বাংলা গড়ার লক্ষে দৃঢ় প্রত্যয় ব্যক্ত করার মাধ্যমে গ্রাম গ্রামে প্রতিটি ওয়ার্ডে দারিদ্রতা দুর করণে কাজ করতে থাকলাম । আমরা প্রতিটি ওয়ার্ড থেকে একটি গ্রামকে বাছাই করে খোলা উঠান বৈঠকের মাধ্যমে আমারদের কর্তব্যরত সকল কর্মকর্তাদের মাধ্যমে একটি করে গ্রাম উন্নয়ন সমিতি গঠন করি। যার প্রধান উদ্দেশ্য ছিল উক্ত সমিতিতে সদস্য হিসেবে ৪০জন মহিলা এবং ২০ জন পুরুষ যাদের দারিদ্রতা দুর করণসহ সাবলম্বী করে গড়ে তোলা । এভাবে আমরা কাজ করতে থাকি। যদিও আমাদের জনবল কম ছিল ,তবুও আমরা সমিতিগুলো গঠন করতে সক্ষম হই।
    সকল সদস্যের মতামত অনুযায়ী বিভিন্ন সময় থেকে সমিতির গঠনের যাত্রা শুরু হয়। ফলে কোন সমিতি জুলাই13 আবার কোন সমিতি জানুয়ারী 14 থেকে গঠন করা হয়। আর সে অনুযায়ী শুরু করা হয় অনলাইন এন্টির কাযক্রর্ম। আমাদের নরসিংদী সদর উপজেলায় উপজেলা সমন্বয়কারী না থাকায় কম্পিউটার অপারেটরকে ভারপ্রাপ্ত সমন্বয়কারীর দায়িত্ব দেয়া হয়। কিন্তু তিনি একা হাতে সকল দায়িত্ব সামলাতেও পিছপা হননি। তিনি আমাকে ও দায়িত্ব প্রদান করে যেন আমি কম্পিউটারে কাজ করি। তিনির উপদেশ মাথায় নিয়ে আমিও কম্পিউটারে ডাটা এন্টির কাজ শুরু করি। তিনি আমাকে উৎসাহ যোগাতে থাকেন এবং অপর কর্মকর্তাদেরও কম্পিউটার শিখার তাগিদ দেন। এখন আমাদের সকল সমিতি ও অনলাইনের আওতায় এসেছে। ফলে আমাদের বর্তমানে ঋনের কার্যক্রম চলছে।
    এখানে আমি বলতে চাই যে ,যেহেতু আমাদের সমিতিতে সকল কাজ অনলাইনে করতে হয়, তাই আমাদের নেট কানেকশনটিও যেন শক্তিশালী হয়। কারন , আমরা যখন কাজ করি তখন আমরা তেমনভাবে কাজ করতে পারি না ।নেট কানেকশন মাঝে থেকে বন্ধ হয়ে যায় । ফলে পুনরায় কাজ আবার চালু করতে হয়। তাই আমরা অনুরোধ থাকলো যে ,আমরা যদি আমাদের উপজেলা নির্বাহী মহোদয়ের মাধ্যমে কোন ব্রডবেন্ড লাইনের সুবিধা পেতে পারি,তাহলে আমাদের কাজ করার শক্তি আরো বেড়ে যাবে। এব্যাপারে আমি মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষন করছি।
    এখন আমরা ঋণ প্রদানের কাজ করছি। আমাদের প্রত্যেকের ইউনিয়নের সমিতিগুলোতে এখন ঋনের চাহিদা বাড়ছে। কিন্তু আমরা তাদেরকে ঋনের সহায়তা ঠিক সময়মত দিতে পারি না। এর প্রধান বাধা হলো ঋনের প্রসেসিং প্রক্রিয়া। ঠিকমত ঋনের প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে না পারায় আমাদের নিকট সমিতির গুলো ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হচ্ছে। বরং আমরা ও তাদের নিকট লজ্বিত হচ্ছি। তাই আমি বলতে চাই ,আমরা পল্লী সঞ্চয় ব্যাংকের স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য সকল বাধা বিপত্তি দুর করনে জন্য একটি সুচিন্তিত মতামত চাই,যেখানে আমাদের চেষ্টা,প্রচেষ্টা,আশা একসাতে নিহিত থাকে।
    অবশেষে,বলতে চাই,আমরা আমাদের স্বপ্নের বাংলাদেশকে দারিদ্র,ক্ষুধামুক্ত এবং আত্মনির্ভরশীল একটি দেশ হিসেবে উপহার দিতে চাই। যেখানে আমাদের থাকবে কোন দ্রারিদ্রতার লেশ মাত্র।
    সবাইকে পবিত্র ইদুল আযহা ও শারদীয় দুর্গা উৎসবের শুভেচ্ছা জানিয়ে শেষ করছি। আবার ও দেখা হবে।
    আল্লাহ হাফেজ

    নাসির উদ্দিন
    মাঠ সহকারী
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প
    নরসিংদী সদর,নরসিংদী।

  94. UCO-Basail Upazilla-Tangail says:

    সম্মানিত প্রোগামার স্যার এর দৃষ্টি আকষন-
    ব্যাংক এশিয়া ইউজার আইডি এবং পাসওয়াড দিয়ে ঢোকার পর একটি সমিতি Select করে All PDF Reports নামে একটা option আছে। যেখানে Click করলে Daily Trancsection List নামে একটা option আসবে । যেখানে Click করলে অনলাইন এ মোট Trans. Deposit/Loan Disbursed/Loan Repay এর Report আসবে । অথাৎ এ পযন্ত কত টাকা Trans. হয়েছে তা আসবে । কিন্ত দুঃখের বিষয় স্যার আজ কয়দিন যাবৎ চেষ্টা করছি শুধু problem দেখাচ্ছে। ব্যাংক এশিয়া যোগাযোগ করার পরও সমাধান হচ্ছে না। দয়া করে স্যার সমস্যাটি সমাধান করে দিলে প্রতিদিন হিসাব/মাসিক হিসাব খবুই সহজ হবে। সমস্যাটি সমধান করে দিলে কত্জ্ঞ থাকবো।

  95. Fazlur Rahman says:

    প্রিয় শহকমী,আমরা যারা ফিল্ড শুপার ভাইজার ৪ বা তার অধিক ইউ পিতে দারিদ্র বিমচনের লক্ষে কাজ করে যাচ্ছি তারা আমার শাথে একমত হবেন যে বাইশাইকেল নিয়ে আমদের ফিল্ড করা খুবই কশঠোকর। তাই শ্রদ্বেয় উধোতন কৃতপক্ষের দৃশটি আকশন পূবক অনুরোধ আমােদর জননে মটর শাইকেলের বরাদ্ব প্রদান করলে কাজের গতি আরও বৃদ্বি পাবে বলে আশা করি॥ বানান ভূলের কারনে ক্ষমা প্রথনা করছি।

  96. নাইম খান says:

    আজ ০২/১০/২০১৪ খ্রিঃ তারিখ রোজ বৃহস্পতিবার বেলা ৩ ঘটিকায় বরিশাল জেলাধীন হিজলা উপজেলার একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি, সমস্যা ও সমাধান নিয়ে উপজেলা পরিষদে, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সভাপতিত্বে এক মত বিনিময় সভা অনুস্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথী হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব মোঃ আবদুল হালিম (অতিরিক্ত সচিব), মহাপরিচালক-র্গভনেন্স ইনোভেশন ইউনিট, প্রধান মন্ত্রীর কার্যালয়। এবং বিকাল ৪.৩০ ঘটিকায় হিজলা উপজেলার, বড়জালিয়া ইউনিয়নের, ৯নং বাউশিয়া গ্রাম উন্নয়ন সমিতিতে এক উঠান বৈঠকে অংশ গ্রহন করেন। এবং সমিতির সুফলভোগী সদস্যদের সাথে সরাসরি কখা বলেন, মত বিনিময় করেন এবং সদস্যদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন।তিনি সমিতি পরিদর্শন করে সন্তোষ প্রকাশ করেন। এ সময় উক্ত উঠান বৈঠকে উস্থিত ছিলেন, উপজেলা চেয়ারম্যান, জনাব সুলতান মাহামুদ টিপু সিকদার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার জনাব, মীর আব্দুল আউয়াল আল মেহেদী এবং একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্র্মকর্তা/কর্মচারি সহ অন্যান্ন অফিসের কর্মকর্তা গন।

    নাইম খান
    উপজেলা সমন্য়কারী,
    হিজলা উপজেলা, বরিশাল।
    ০১৯৩৮৮৭৯২৫২

  97. আরিফ, মাগুরা says:

    সকল কে ঈদুল আযহা ও শারদীয় দূর্গাপূজার শুভেচ্ছা ও ঈদ মোবারক

  98. sumon says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করায় এর সাথে যারা দিন-রাত কাজ করেছেন তাদের প্রতি রইল আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা। ইন্টারনেট টাওয়ার স্থাপনের মাধ্যমে আমাদের অনলাইন মোবাইল ব্যাংকিং-এর কাজ খুব দ্রুততর হয়েছে। কিন্তু একটা সমস্য হচ্ছে বিদ্যুৎ চলে গেলে ব্যাক আপ থাকে মাত্র ১৫-২০ মিনিট। এই সমস্যা সমাধানের উপায় কি? কারণ আপনারা সবাই জানেন উপজেলাগুলোতে কি পরিমাণ লোডশেডিং হয়।

  99. মিজান says:

    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের জানাই পবিত্র ঈদুল আজহার অগ্রিম শুভেচ্ছা।
    ঈদ মোবারক।

  100. narayan dash says:

    অনলাইন ব্যাংকিং সফটওয়্যার হতে যে সমস্ত তথ্য প্রিন্ট করছি তাতে প্রিন্ট করার তারিখ ও সময় আসছে পরবর্তী দিনের। এটা কি অনলাইন ব্যাংকিং সফটওয়্যারের সমস্যা, নাকি…..।

  101. Ebek,Narsingdi sadar,Narsingdi says:

    আমরা নরসিংদী সদর উপজেলার একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের পক্ষ থেকে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক এর সম্মানিত চেয়াম্যান মহোদয় এবং আমাদের একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সম্মানিত প্রকল্প পরিচালক মহোদয়কে জানাই শারদীয় দূর্গা উৎসব ও পবিত্র ইদুল আযহার শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
    আজ ২৬ সেপ্টেম্বর রোজ শুক্রবার । আমাদের নরসিংদী সদর উপজেলার একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প পরিদর্শন করেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সম্মানিত সচিব মহোদয় জনাব মোখলেছুর রহমান । তিনি হাজীপুর ইউনিয়নের চরহাজীপুর গ্রাম উন্নয়ন সমিতি পরিদর্শন করেন।তিনি সমিতির উঠান বৈঠকে উপস্থিত হয়ে সমিতির সদস্যদের সাথে সমিতির বিভিন্ন বিষয়ে সার্বিক আলোচনা ও মত বিনিময় করেন এবং সমিতির সদস্যদের আয়বর্ধক গৃহীত বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ পরিদর্শন করেন।সদস্যদের বিভিন্ন প্রকল্পের মধ্যে তিনি যৌথমৎস খামার,গবাদী পশু খামার,ক্ষুদ্র ব্যবসা,সবজ্বি চাষ ইত্যাদি কার্যক্রম প্রত্যক্ষ ভাবে পরির্দশন ও নিরীক্ষন করেন।এছাড়া তিনি সমিতির হিসাব নিকাশ ,সদস্যদের পাশ বই, রেজিস্টার এবং পরিদর্শন বহিতে স্বাক্ষর করেন।
    পরিশেষে , সকল সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়ে প্রকল্পের কার্যক্রমের অগ্রগতিতে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

    পক্ষে,
    শামীমা আক্তার
    উপজেলা সমন্বয়কারী(ভারপ্রাপ্ত)
    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প
    নরসিংদী সদর,নরসিংদী।

  102. JWEAL says:

    GAZIPUR SADAR ,THANK YOU EBEK

  103. নাইম খান says:

    অবশেষে, আজ সন্ধায় অনেক দিন পরে ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সংযোগ পেলাম। স্পিড বেশ ভালো মনে হচ্ছে। স্প্রিড ভারো থাকলে অনলাইনে কাজ করতে মজাই অন্য রকম।

    নাইম খান
    উপজেলা সমন্বয়কারী
    হিজলা উপজেলা, বরিশাল।
    ০১৯৩৮৮৭৯২৫২

    • sumon sarker says:

      29/09/2014 DC SIR (magura)arranged meting for all EBEK staff. we joined the meting . our UNO SIR (shalikha) also joined with us.we are really thankful to our new comer DC SIR for calling us and share our experience.

  104. Robiul, UCO says:

    বিসিবিএল থেকে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে তথ্য আদান প্রদানে কত সময় লাগে ? গত ১১/০৯/১৪ তারিখে সঞ্চয় পোষ্টিং করলাম আজ ২১/০৯/১৪ পর্যন্ত একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সফটওয়্যারে যায় নাই। বিসিবিএল এ সদস্য প্রতি সঞ্চয় জমা ২৬০০/৩৬০০ টাকা কিন্তু একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের সফটওয়্যারে লোন তৈরী করতে গেলে সঞ্চয় জমা ১৮০০/২৪০০ টাকা দেখায়। যার ফলে লোন তৈরী করতে সমস্যা হচ্ছে। এ রকম সমস্যা থেকে পরিত্রান কবে পাব জানালে উপকৃত হব।

  105. priobrata says:

    উপজেলায় বিদ্যুৎ থাকে না তাই অনলাইনে ঋণ প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে না এতে সমিতির সদস্যদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছে, যে সকল উপজেলায় বিদ্যুৎ সমস্যা সে সকল উপজেলাতে সৌর বিদ্যুৎ দেওয়া হলে দ্রুতগতিতে অনলাইন ব্যাংকিং সেবা প্রদান করা যাবে।

    • admin says:

      মতামতটি প্রকল্পের প্রধান কার্যালয়ের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। উল্লেখিত উপজেলার বিদ্যুৎ এবং ইন্টারন্টে এর সমস্যার সমাধান করার জন্য উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে দুটি সমস্যার কথা উল্লেখ করে প্রকল্প পরিচালক মহোদয়ের কাছে পত্র প্রেরণ করতে হবে।

      এ.এ.ই.তানহার
      প্রোগ্রামার
      এবাএখা
      01938879010
      01911985299

  106. প্রকল্প সম্প্রসারিত হলো, কিছু উপজেলায় মাত্র ৪ থেকে ৬টি ইউনিয়ন কোথাও ১৫ এর অধিক ইউনিয়ন বিস্তৃত। যেখানে ৪-৬ টি ইউনিয়ন সেখানে সুপারভাইজারের প্রয়োজনীয়তা নেই বললেই চলে। আবার অধিক ইউনিয়নে আনুপাতিক হারে বেশী সুপারভাইজার প্রয়োজন। প্রকল্প অফিসে মাত্র ১ জন কঃ অঃ কাম হিসাব সহকারী কর্মরত তার পক্ষে অনলাই ব্যাংকিং এ এজেন্টের ৮০% কাজ করতে হয়। আবার হিসাব সংক্রান্ত কাজ, এজি, ইউএনও অফিস, ক্যাশ গ্রহন করে ব্যাংকে জমা সহ বিবিধ দাপ্তরিক কাজ করতে হয়। অনেকে ফিল্ড সুপারভাইজারের শূণ্য পদে দায়িত্ব পালন করে আসছে। কেন্দ্রীয়কার্যালয় থেকে পরিদর্শন কালীন ত্রুটি বিচ্যুতির দায় নিতে হয়। কিন্তু দায়িত্ব পালন কালীন সমস্যা গুলো শোনার ও যেন কেউ নেই। শোনাযাচ্ছে সুপারভাইজারদের সহকারী ম্যানেজার পদে প্রমোশনের সুযোগ থাকবে। কিন্তু নিয়োগের সময় যদি উক্ত পদটি কঃ অঃ কাম হিসাব সহকারী দের চেয়ে বড় থাকতো তাহলে অনেকেই উক্ত পদে আবেদন করতো। অনেকে আমলা তান্ত্রিক প্রতিকুলতা থাকতে পারার উদ্বিগ্নতায় উপজেলা সমন্বয়কারী পদে আবেদন করেনি। তাই পদোন্ততির ক্ষেত্রে কোন নির্দিষ্ট পদকে সুযোগ না দিয়ে যোগ্যতার ভিত্তিতে সুযোগ প্রদান করা হলে কর্মক্ষেত্রে অধিক নিষ্ঠাবান হবার সুযোগ থাকে।

    • Zahid hasan says:

      মেরাজ খান আপনার সাথে একমত প্রশন করে শ্রদ্ধেয় পিডি মহদয়ের নিকট আকুল আবেদন পদোন্ততির ক্ষেত্রে কোন নির্দিষ্ট পদকে সুযোগ না দিয়ে যোগ্যতার ভিত্তিতে সুযোগ প্রদান করা হলে কর্মক্ষেত্রে অধিক নিষ্ঠাবান হবার সুযোগ থাকে।

    • Tanzidul says:

      আপনার সাথে একমত

  107. অনলাইন এমসিএস এ নিউ মেম্বার ক্রিয়েট করতে গিয়ে ৩ জন সদস্যের কোড নং ভুল করেছি, দয়া করে জানাবেন কিভাবে এর সংশোধন সম্ভব।

    • admin says:

      মতামতটির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণপূর্বক জানাচ্ছিযে, এমসিএস এ নিউ মেম্বার ক্রিয়েট করতে যেই মেম্বারগুলোর কোড ভুল করেছ, সে কোডগুলো লিখে দ্রুত ই-মেইল কর। programmer@ebek-rdcd.gov.bd । সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

      এ.এম.ই.তানহার
      প্রোগ্রামার
      01938879010
      01911985299

  108. Mazidul Islam says:

    Mazidul Islam এর সাথে আমরা একমত। তিনি অবশ্যই শিখ্খীত সৎ সাহসী দুরদর্শি সম্পর্ন মানুষ, তাছাড়া এত চমৎকার ধারনা ও বাস্তব সম্মত পরিকল্পনা করা সবার দ্বারা সম্ভব না। তাই শুধু পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করলেই হবে না তা সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করা জন্য এমনি বাস্তব সম্মত পরিকল্পনা অনুসরন করা প্রয়োজন। প্রয়োজনে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদের সাথে পরামর্শ করা উচিত। আজ গ্রামীন ব্যাংক এমন একটা শক্তিশালি আর্থিক প্রতিষ্ঠান যার সহজে আর্থিক ধ্বস নামার কোন সম্ভবনা নেই। তাই পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক সুশূঙ্খল নিয়ম কানুন দ্বারা সুষ্ঠভাবে পরিচালনা তদারকির এবং কাজের গতীশিলতা বাড়ানোর জন্য আরও ব্যাপক জনবল নিয়োগ দেওয়া প্রয়োজন। অন্যথায় অচিরে এই প্রতিষ্ঠানটি মুখ থুবরে পরবে। প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্ন শুধু স্বপ্নই থেকে যাবে।

  109. Ahasan Habib says:

    Mazidul Islam এর সাথে আমরা একমত। তিনি অবশ্যই শিখ্খীত সৎ সাহসী দুরদর্শি সম্পর্ন মানুষ, তাছাড়া এত চমৎকার ধারনা ও বাস্তব সম্মত পরিকল্পনা করা সবার দ্বারা সম্ভব না। তাই শুধু পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক প্রতিষ্ঠা করলেই হবে না তা সুষ্ঠভাবে পরিচালনা করা জন্য এমনি বাস্তব সম্মত পরিকল্পনা অনুসরন করা প্রয়োজন। প্রয়োজনে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদের সাথে পরামর্শ করা উচিত।

  110. Mazidul Islam says:

    এ দেশকে পরিবর্তনের জন্য একটি মানুষ, মানুষ হলে তার আলোয় আলোকিত হবে সবাই, আর সেই মানুষ হচ্ছে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা তার আলোয় আলোকিত হতে যাচ্ছে আজ গোটা জাতি।’

  111. rashed says:

    polli sonchoy bank ar jatra suvo huk

  112. Fazlur Rahman says:

    নব নিয়োগকৃত বাংকের মহামন চেয়ারমান শারকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

  113. উপজেলায় নেটের গতি এতয় কম যে, দিনের সমস্ত কাজ রাত ১২.০০-০১.০০ পর্যন্ত করেও শেষ হয় না । আমাদের নেটের গতি কিভাবে বাড়ানো যায় তা মহোদয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

    • admin says:

      উপজেলা সমন্বয়কারী, নওগাঁ/ সবা্
      ব্লগ পেইজের সমস্যাটির পরিপ্রেক্ষিতে জানানো যাচ্ছে যে,পর্যায়ক্রমে বিভিন্ন উপজেলায় ইন্টারনেট এর সমস্যা সমাধানের লক্ষ্য দ্রুত গতির ইনটারনেট চালু করার উদ্দেশ্য ইন্টারনেট টাওয়ার বসানো হচ্ছে। গত অর্থ বছরে প্রায় 68 টি উপজেলায় এই টাওয়ার বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে ঐসব উপজেলার সমন্বয়কারীরা সুফল পেতে শুরু করেছে। তাই যাদের উপজেলায় ইন্টোরনেট এ সমস্যা আছে,তাদেরকে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের মাধ্যমে দ্রৃতগতির ইন্টারনেট সংযোগ প্রদানের ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রকল্প পরিচালক বরাবরে পত্র প্রেরণ করতে হবে।

      এ.এম.ই.তানহার
      প্রোগ্রামার
      01938879010 (অফিসিয়াল)
      01911985299 (ব্যাক্তিগত)

      • narayan dash says:

        অনলাইন এমসিএস এ নিউ মেম্বার ক্রিয়েট করতে গিয়ে সদস্য কোড ভুল করেছি, এটা সংশোধন কিভাবে করা যাবে?

        • admin says:

          মতামতটির প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণপূর্বক জানাচ্ছিযে, এমসিএস এ নিউ মেম্বার ক্রিয়েট করতে যেই মেম্বারগুলোর কোড ভুল করেছ, সে কোডগুলো লিখে দ্রুত ই-মেইল কর। programmer@ebek-rdcd.gov.bd । সমস্যা সমাধান হয়ে যাবে।

          এ.এম.ই.তানহার
          প্রোগ্রামার
          01938879010
          01911985299

  114. Ashrafunnahar. COAA says:

    Dear PD Sir,
    YOU ARE NOT NEGLECT TO ALL EBEK STAFF. SPECIALLY COAA AFTER POLLI SONCHOY BANK. PLEASE SIR.

  115. bulbul says:

    sir, Bycle amra 10 jon ar modhe 6 jon cycle palam . Baki 4 jon kobe pabe ta amra kew jani na. gabtoli Upozila. 1 jon Mea mat sohokari ase Sir bole mea ti pabe na. 1 jon Mat Sohokari 1 Mas holo join korse take bycile dibe. keno Mea Ti bycicle Pabe Na? ? ? ?

  116. Mazidul Islam says:

    পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক হতে পারে এশিয়ার সর্ব বৃহত্তম সরকারি বিশেষায়িত ব্যাংক?
    মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্ন দারিদ্র বিমোচনের মাধ্যমে বাংলাদেশকে উন্নত দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা এই জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর হাতে নেওয়া বাংলাদেশের ইতিহাসের সর্ববৃহত্তম প্রকল্প একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্প। এই প্রকল্পকে স্থীয়রুপ দিতে প্রতিষ্ঠা করেছে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক যার মাধ্যমে এদেশের দরিদ্র হতদরিদ্র তথা সর্বস্তরের মানুষের জীবন যাত্রার মান উন্নয়নের একমাত্র ধারক হিসাবে কাজ করবেএই ব্যাংক।
    আমরা বাঙ্গালী জাতী ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের ডাকে যুদ্ধ করে এদেশকে স্বাধীন করেছি, কিন্তু আজও আমরা আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীনতা আর্জন করতে পারিনি,আজ মাননীয় প্রাধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা আর্থনৈতিক স্বাধীনতার ডাক দিয়েছে, আমরা বিশ্বাস করি মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্ন বাংলাদেশকে বিশ্বের উন্নত দেশ হিসাবে প্রতিষ্ঠা করা, এই জন্যই তিনি প্রতিষ্ঠা করেছ পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক যার মাধ্যমে এদেশকে আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করা সম্ভব। পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক মাধ্যমে আব্যশই বাংলাদেশকে আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করা সম্ভব। এই জন্যই কঠর হস্তে প্রতিটি ইউনিয়নের প্রতিটি ওর্য়াড থেকে খুেট খুেট দারিদ্র নির্মুল করতে হবে।এই প্রতিষ্ঠানে নিয়োজিত প্রতিটি ইউনিয়নে মাত্র ১ জন মাঠ সহকারীর মাধ্যমে তা কখনও সম্ভব না।একটা বেসরকারি ব্যাংক, গ্রামীন ব্যাংক যেখােন প্রতিটি ইউনিয়নে নিজেস্ব বিল্ডিং স্থাপন
    করে ৮থেকে৯ জন কর্মি নিয়ে তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছে,সেখানে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক কিভাবে প্রতিটি ইউনিয়নে মাত্র ১জন মাঠসহকারী দিয়ে দারিদ্রতা নির্মুল করবে? তাই সর্ব প্রথমেই প্রতিটি ইউনিয়নে আর্থনৈতিক স্বাধীনতার দূর্গ হিসাবে পল্লী সঞ্চয়
    ব্যাংকের স্থায়ী বিল্ডিং তৈরি করতে হবে,সেই সাথে ঐ ইউনিয়নে দায়িত্ব প্রাপ্ত মাঠসহকারীকে কাজের যোগ্যতা আনুযায়ী শাখা ব্যাবস্থাপকের দায়িত্ব দিয়ে তার আধীনে ৭থেকে৮ কর্মী নিয়োগ দিয়ে সুষ্ঠভাবে তদারকী কার্যক্রম পরিচালনা মাধ্যমে ঐ এলাকায় আর্থিক উন্নয়ন করা সম্ভব। সেই সঙ্গে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে জোনাল নিরীখন আফিস স্থাপন করে ঐ উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নকে সুষ্ঠভাবে নিরীখন ও তদারকীর মাধ্যমে প্রতিটি উপজেলাকে আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করতে হবে।এ ভাবেই উপজেলা থেকে জেলা থেকে বিভাগকে আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করার মাধ্যমে বাংলাদেশকে আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীন করা সম্ভব। এবং প্রতিটি জেলায় একটি করে Traning Institution গড়ে তোলার মাধ্যমে ঐ জেলায় নিয়োজি কর্মচারী, কর্মকর্তা এবং সদস্যদের উন্নয়ন মুলক Traning দেওয়া সম্ভব হয়। এভাবে যেমন একদিকে ব্যাপক লোকের কর্মসংস্থান হবে, অন্যদিকে মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর স্বপ্ন বাংলাদেশ আর্থনৈতিকভাবে স্বাধীনতা অর্জন করবে।

  117. Jony says:

    Hi, shabay kmn aco?

  118. Robiul, UCO, Nageswari. says:

    সুমন শিকারীর সাথে একমত ?

  119. অনেক স্বপ্ন নিয়ে একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পে চাকরি করতে এসেছিলাম। এখনো করছি, এম.কম পরীক্ষা দিয়ে যোগদান করেছিলাম। যখন ফলাফল বের হলো তখন প্রথম শ্রেণীতে উত্তীর্ণ হলাম। অনেকেই বলাবলি করল ফলাফলতো ভালই হলো, এবার ভাল কিছু কর। কিন্ত আমি দেখলাম এই গরীব দু:খী মানুষগুলোকে রেখে কোথায় যাই। তারা যে আমার উপকারভোগী আমি তাদের সমন্বয়কারী, তাদের সুখে দু:খে সমন্বয় করাই যে আমার কাজ। অত্যন্ত ভাল লাগে যখন কোন সদস্য খামারের মাধ্যমে ঋণ নিয়ে স্বাবলম্বীতার গল্প শোনায়, আর আমি আমার মোবাইলের ক্যানভাসে ছবি উঠাই। এরকম হাজারো সফলতার গল্প তৈরী হয়েছে। আমার উপজেলার প্রত্যেকটি খামারির সাথে যেন আমি আত্মার বাঁধনে বাঁধা। তাদের সফলতার গল্পগুলো শুনতে শুনতে মনে হয় আজ যদি বঙ্গবন্ধু থাকতেন তাহলে চিঠি লিখে হলেও বলতাম এসে আপনার অসহায় বাঙালীদের সফলতার দৃশ্য দেখে যান। এতসব ভাবতে ভাবতে যখন নিজের ভবিষ্যতের কথা ভাবি, তখনই কেমন যেন আনমনা হয়ে যাই। এত আন্দোলন করে পল্লী সঞ্চয় ব্যাংক পেলাম কিন্ত আমরা যারা প্রকল্পের সাথে জড়িত তারা সত্যিই কিছু পাব তো ?

    • নাইম খান says:

      অনলাইন ব্যাংকিং কর্মকান্ড দ্রুত সম্পাদন করার জন্য, প্রধান কার্যালয় হতে বেশ কয়েকটি উপজেলায় ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেটের ব্যাবস্থা করা হয়েছে। তার মধ্যে আমি এক জন সৌভাগ্যবান উপজেলা সমন্বয়কারী। বরিশাল জেলার, হিজলা উপজেলায় প্রায় ১৫ দিন হলো সংযোগ স্থাপন করা হয়েছে। কিন্তু কস্টের কথা হলো, ইন্টারনেটের স্পিড প্রায় মডেমের সমান বা সামান্ন একটু বেশী হতে পারে। আর প্রায় দিন একেবারে কোন কানেকশন থাকেনা্। AlwaysOn Nwtwork কে সমস্যার কথা জানালে বলে আমরা লাইন ঠিক করার জন্য চেস্টা করতেছি কিন্তু আর ঠিক হয়না। যে দিন নেট থাকেনা সারাদিন কোন কাজ করতে পারিনা। এমন যদি হয় তা হলে কি ভাবে দ্রুত অনলাইন ব্যাংকিং কর্মকান্ড দ্রুত সম্পাদন করব। স্যার দ্রুত এর সমাধান আশা করছি।

      নাইম খান
      উপজেলা সমন্বয়কারী
      হিজলা উপজেলা, বরিশাল।
      ০১৯৩৮৮৭৯২৫২

      • admin says:

        অলওয়েজ অন নেটওয়ার্ক এর সাথে কথা বলে সমস্যাটির সমাধান করা হয়েছে।
        এ.এম.ই.তানহার
        প্রোগ্রামার
        01938879010
        01911985299

  120. সুমন শিকারী says:

    একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পভূক্ত সকল গ্রাম উন্নয়ন সমিতি সমূহ ম্যানুয়েল ব্যাংকিং থেকে অনলাইন ব্যাংকিংএ রূপান্তরিত হবার কাজ প্রায় শেষ হতে যাচ্ছে সেহেতু একে সফল করার জন্য দরকার দক্ষ জনশক্তি । আর এর জন্য দরকার প্রকল্পভূক্ত সকল কর্মচারীদের জন্য উপযুক্ত প্রশিক্ষণের । আর ও দরকার অন্যান্য ব্যাংক গুলোর মত প্রকল্প কার্যালয় থেকে সকল উপজেলার জন্য একই ধরনের লেজার / বহি সরবরাহ করা যার ফলে প্রকল্পের হিসাব নিকাস সুচারুভাবে সম্পাদন করা সম্ভব হবে।

  121. Ranjit says:

    He sob karmokorta-kormochari pora lekha kortece ….tader ki mullaon kora hobe?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

You may use these HTML tags and attributes: <a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>